মেইন ম্যেনু

মৃত্যুকে খুব কাছে থেকে দেখেছেন যেসব তারকা

ভক্তদের পচ্ছন্দ এবং বাস্তবতা ফুটিয়ে তুলতে গিয়ে অনেক সময়ে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কাজ করতে হয় তারকাদের। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই অভিজ্ঞতা এবং অভিনয় দক্ষতায় উতরে গেলেও, অনেক ক্ষেত্রে ঘটে যায় ভয়াবহ দুর্ঘটনা। বলিউড তারকাদের এমনই কিছু ভয়ংকর মুহূর্তের কথা জানিয়েছে দেশটির জনপ্রিয় গণমাধ্যম টাইমস অব ইন্ডিয়া।

অমিতাভ বচ্চন: বলিউডের বিগ বি খ্যাত অমিতাভ বচ্চনের কুলি সিনেমার কথা নিশ্চয় সকলেরই মনে আছে। তবে সেই কুলি সিনেমায় মারামারি দৃশ্যে অভিনয় করতে গিয়ে মারাত্মক আহত হয়েছিলেন বলিউড শাহেনশা, এটি অনেকেরই অজানা। দীর্ঘদিন হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়ে, লাখো দর্শকের ভালোবাসায় ফিরে এসেছিলেন তিনি। সেই সময়ে প্রায় দু-তিন মাস হাসপাতালে থাকতে হয়েছিল অমিতাভকে।
ঐশ্বরিয়া রাই বচ্চন: শ্বশুরের মতো বউমা ঐশ্বরিয়াকে সুটিংয়ে আহত হয়ে পড়ে থাকতে হয়েছিল হাসপাতালে। তবে সাবেক এই বিশ্বসুন্দরীর চোট অমিতাভের মতো এতোটা ভয়াবহ ছিল না। ‘খাকি’ সিনেমার সুটিং চলাকালে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে জিপ গাড়ি সজোরো ধাক্কা দেয় এই অভিনেত্রীকে। ঘটনা অনেক মারাত্মক হতে পারতো, তবে বলতে হয় ভাগ্যের জোরোই সেদিন বেঁচে গিয়েছিলেন রাই সুন্দরী। পায়ের গোড়ালি প্রচন্ড আঘাত নিয়ে সঙ্গে সঙ্গেই নেয়া হয় হাসপাতালে। পরে তার পায়ে দশটি সেলাই দেয়া লেগেছিল।
সালমান খান: দাবাং হিরো সালমান খান সম্প্রতি জানিয়েছেন, ‘তেরো নাম’ সিনেমায় অভিনয়ের সময়ে ঘটে গেছে ভয়ংকর এক ঘটনা। যদিও এতোদিন এটি অপ্রকাশিতই ছিল। রেললাইনের ওপর দিয়ে হেঁটে যাচ্ছিলেন সালমান, আর তাঁর পেছনে আসছে রেল। দৃশ্যটি ধারনের সময়ে অভিনেতা অভিনয়ে এতোটাই বুঁদ ছিলেন যে, ট্রেন তার খুব চলে এসেছিল। কিন্তু তিনি সেটা আন্দাজই করতে পারেননি। পরে এক সহ অভিনেতা ধাক্কা দিয়ে তাকে লাইন থেকে সরিয়ে দেন বলে জানিয়েছেন।
আনু আগারওয়াল: ‘আশিকী’ খ্যাত অভিনেত্রী আনু আগারওয়ালকে পর্দায় খুব বেশি দেখা না গেলেও, এক সিনেমাতেই তিনি বাজিমাত করেছিলেন। মুম্বাইতে ১৯৯৯ সালে এক গাড়ি দুর্ঘটনায় ২৯দিন কোমায় ছিলেন এই অভিনেত্রী। সম্পূর্ণ সুস্থ হতে কয়েকমাস সময়ে লেগেছিল।