মেইন ম্যেনু

মৃত্যু চেয়ে সোহিনীদেবীর অনশন!

মানতে কষ্ট হলেও সোহিনীদেবীর যন্ত্রণা চোখে দেখতে পারছেন না তার নাতি-নাতনিরাও। বিশেষজ্ঞদের মতে, ব্যতিক্রমী ক্ষেত্রে এভাবে শান্তিমৃত্যুর পথ নেন জৈন ধর্মাবলম্বীরা।

ভারতীয় বিভিন্ন গণমাধ্যমে জানা গেছে, ক্যানসারের যন্ত্রণা থেকে মুক্তি পেতে চান সোহিনীদেবী। তাই ‘শান্তিমৃত্যু’র পথে সোহিনীদেবী দুগার। ৯ দিন ধরে নির্জলা উপবাস শুরু করেছেন ৮২ বছরের বালিগঞ্জের এই বাসিন্দা।

উপবাসের মধ্যদিয়েই তিনি শান্তিমৃত্যু চান। এটি জৈনধর্মের একটি প্রচলিত রীতি। ক্যানসারের যন্ত্রণা থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য শেষমেষ এ পথই বেছে নিয়েছেন কলকাতার এই বৃদ্ধা।

সোহিনীদেবী দুগারের শ্বাসযন্ত্রে ক্যানসার ধরা পড়ে গত বছর। শরীরজুড়ে থাবা বিস্তার করে মারণ রোগ ক্যানসার। চিকিৎসা চললেও যন্ত্রণা কমেনি।

মৃত্যু অনিবার্য বুঝে শান্তিমৃত্যুর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন সোহিনীদেবী। কথা বলার ক্ষমতা নেই। তাই কাগজে লিখে জানান, ‌তিনি ‘শান্তিতে মৃত্যু’ চান। তার শেষ ইচ্ছেকে মান্যতা দিয়েছেন আত্মীয় পরিজনরাও।

২০ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যা ৭টা ১৫ থেকে বালিগঞ্জের ম্যান্ডেভিলা গার্ডেন্সের ফ্ল্যাটে শুরু হয়েছে শান্তিমৃত্যুর অনশন। মৃত্যু কামনায় নির্জলা উপবাস রয়েছেন তিনি।

কিছুদিন পর চিরঘুমে চলে যাবেন সোহিনীদেবী দুগার। মিলবে যন্ত্রনা থেকে মুক্তি। বাড়িতে চলছে শান্তিমৃত্যুর প্রার্থনাও।