মেইন ম্যেনু

তাইওয়ানে ভূমিকম্প

মৃত স্বামীর নিচে জীবিত স্ত্রী

তাইওয়ানে ভূমিকম্পে বিধ্বস্ত ভবনের ধ্বংসস্তূপে দুই দিন চাপা পড়ে ছিলেন স্বামী-স্ত্রী। স্বামীর মৃতদেহের নিচে স্ত্রী চাপা পড়লেও তিনি প্রাণে বেঁচে ছিলেন। সোমবার এই নারীকে উদ্ধার করা হয়েছে। তার পাশেই পড়ে ছিল তাদের দুই বছরের ছেলের লাশ।

তাইওয়ানের তাইনান শহরে ভূমিকম্পে বিধ্বস্ত হয় একটি বিশাল আবাসিক ভবন। সেই ভবন থেকে সোমবার দুইজনকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে। যার মধ্যে একজন ওই নারী। তাকে উদ্ধারের কিছুক্ষণ পর আরেক ব্যক্তিকে জীবিত উদ্ধার করা হয়।

তাইওয়ানে ভূমিকম্পে সবশেষ তথ্যানুযায়ী মারা গেছে ৩৭ জন। এর মধ্যে অধিকাংশে মৃত্যু হয়েছে ভবন বিধ্বস্তের কারণে। এখনো ১০০ জনের মতো লোক ওই ভবনের ধ্বংসস্তূপের নিচে চাপা পড়ে আছে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

উদ্ধারকৃত নারীর নাম সাও-ওয়েই লিং। সোমবার সকালে তাকে উদ্ধার করা হয়েছে। স্থানীয় সংসদ সদস্য ওয়াং তিং-ইউয়ের বরাত দিয়ে রয়াটার্স এ খবর জানিয়েছে। সাও-ওয়েই লিংয়ের জ্ঞান আছে। তাকে হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে।

উদ্ধারকর্মীরা জানিয়েছেন, মনে হয়েছে ওই নারীর স্বামীর কারণে বিমের নিচে চাপা পড়া থেকে বেঁচে গেছেন তিনি। ধ্বংসস্তূপের নিচে বেঁচে থাকা লোকদের সন্ধান পাওয়ার পর রাতভর তার সঙ্গে যোগাযোগ চালিয়ে যান উদ্ধারকর্মীরা। পরে ধ্বংসস্তূপ কেটে সোমবার সকালে তাদের উদ্ধার করা হয়।

কর্মকর্তা জানিয়েছেন, ধ্বংসস্তূপ থেকে রোববার রাত পর্যন্ত ৩১০ জনকে উদ্ধার করা হয়েছে, যাদের মধ্যে ১০০ জনকে হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। ছয় মাসের একটি শিশুকে জীবিত উদ্ধার করা হয়, যাকে হাসপাতালে নেওয়ার কয়েক ঘণ্টা পর মৃত্যু হয়।

তথ্যসূত্র : বিবিসি অনলাইন।