মেইন ম্যেনু

‘মেমবউ’-এর আড়ালে লুকিয়ে থাকা এই বাঙালিনিকে চেনেন?

“হাই আই অ্যাম ক্যারল”- কে ইনি তা আর বুঝিয়ে বলার প্রয়োজন আছে কি? হয়তো না। ব্লন্ড চুল, আর আধো আধো বাংলা বলা বিদেশিনিকে এখন চেনেন না, এমন বাঙালি খুঁজে পাওয়া কঠিন। সিরিয়ালের প্রোমোতে এভাবে নিজের পরিচয় দেওয়ার পর থেকেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে গিয়েছে তাঁর কথা বলার ভঙ্গি। আর সেই সুবাদে সিরিয়াল শুরুর আগেই যেন সুপারহিট ক্যারল।

বাংলা টেলিভিশনে কোনও সিরিয়াল আত্মপ্রকাশের আগেই শেষ কবে এই পরিমাণ জনপ্রিয়তা পেয়েছে, মনে করা কঠিন। তা সে যত বড় পরিচালক বা নায়ক, নায়িকার সিরিয়ালই হোক না কেন। এতক্ষণে নিশ্চয়ই বুঝতে পেরে গিয়েছেন কোন সিরিয়ালের কথা হচ্ছে। হ্যাঁ, ‘মেমবউ’।

১৯ সেপ্টেম্বর থেকে স্টার জলসায় প্রতিদিন বিকেল পাঁচটায় দেখা দেবেন এই মেমবউ। তবে তার আগেই ফেসবুক আর টুইটারে সিরিয়ালের প্রোমো নিয়ে চলছে নানা আলোচনা। তৈরি হচ্ছে নানা মজার মজার মেমে। কেউ বলছেন, এই সিরিয়াল সব কমেডি শো-কে হার মানাবে।

আবার কারও দাবি, আর যা-ই হোক, এই মেমকে কোনওভাবেই বিদেশিনি বলে মনে হচ্ছে না! সবচেয়ে বেশি চর্চা হচ্ছে মেম বউয়ের নকল চুল বা উইগ নিয়ে। কিন্তু যাঁকে নিয়ে এত চর্চা, তার আসল পরিচয় জানেন কি? উইগের আড়ালে তিনি তো আসলে আদ্যোপান্ত এক বাঙালি যুবতীই।

এই বাঙালিনি হলেন বিনীতা চট্টোপাধ্যায়। কলকাতার লোরেটো কলেজ থেকে জার্নালিজম পাশ করেন। তারপর টেলিভিশন অ্যাঙ্কর হিসেবে কেরিয়ার শুরু হয়। এরপর চলে যান মুম্বাই। সেখানে প্রথমেই স্টার প্লাসের একটি ধারাবাহিকে অভিনয়ের সুযোগ আসে।

‘এক হাজারো মে মেরি বহনা হ্যায়’-তে ‘ঋতু’র ভূমিকায় অভিনয় করেন তিনি। সেখানে আবার একজন পাঞ্জাবি মেয়ে হিসেবে দেখা গিয়েছিল তাঁকে। এছাড়া এমটিভি ‘স্প্লিটসভিল’-ও হোস্ট করেছেন বিনীতা। অভিনয়ের পাশাপাশি ভাল গানও করতে পারেন এই ‘মেমবউ’।

‘বাঙালি ছেলের বিদেশি বউ’, বাংলা টেলিভিশনে এই ভাবনা নিয়ে সিরিয়াল আগেও হয়েছে। ‘বিদেশিনি বধূ’ সিরিয়ালটিও বেশ জনপ্রিয় হয়েছিল। তবে মেম বউ নিয়ে বাঙালিদের আগ্রহ ও আলোচনা হাজার গুণ বেশি। বিনীতার বিপরীতে সিরিয়ালে দেখা যাবে সৌরভ চক্রবর্তীকে। মেমবউ ওরফে বিনীতার অভিনয় দেখতে মুখিয়ে রয়েছেন সিরিয়াল প্রেমীরা।-সংবাদ প্রতিদিন