মেইন ম্যেনু

মেসির নামেই তাঁর জীবন রক্ষা পেয়েছে

তাঁর দৃষ্টি নন্দন ফুটবলে মোহিত হয় লক্ষ-কোটি দর্শক। তাঁর শৈল্পিক ফুটবলে জীবন নেচে ওঠে নতুন ছন্দে। তাঁর একটা গোল আনন্দের প্লাবন বইয়ে দেয় লক্ষ-কোটি দর্শকের হৃদয়ে। লিওনেল মেসি লক্ষ-কোটি দর্শকের জীবনে কেবল আনন্দই উপহার দেন না, কখনো কখনো জীবন রক্ষাও করেন! এই মেসি নামটা এতটাই প্রভাবশালী, অপহরণকারীদের পাথর হৃদয় পর্যন্ত গলে যায়। বেঁচে যায় অপহৃতের জীবন!
ঘটনাটা শুনুন তাহলে। সান্তিয়াগো লোপেজ মেনেডেজের বাড়ি আর্জেন্টিনায়। ২৮ বছর বয়সী এ কৃষি প্রকৌশলী গত বছর থেকে কাজ করছেন নাইজেরিয়ায়। গত ২৪ জুন কর্মস্থল থেকে তাঁকে অপহরণ করে একদল অস্ত্রধারী। অনর্গল ইংরেজিতে কথা বলতে পারেন বলে অপহরণকারীরা ভেবেছিল তিনি একজন আমেরিকান।

জিম্মি দশায় তাঁর ওপর ভীষণ চড়াও হয় অপহরণকারীরা। এলোপাতাড়ি মারতে থাকে। ইংরেজিতে মেনেডেজ যতই বোঝাতে থাকুন না কেন, কিছুতেই কাজ হয় না। অত্যাচারের মাত্রা ক্রমেই বাড়তে থাকে। একপর্যায়ে তিনি কাঁদতে কাঁদতে চিৎকার করেন—‘মেসি! মেসি! মেসি!’

নামটা শুনে থমকে যায় অপহরণকারীরা। তিন দিন আটকা থাকার পর মুক্তিপণের বিনিময়ে ছাড়া পেলেও মেনেডেজ জানান, তাঁর জীবন রক্ষা পেয়েছে মেসি নামটার কারণেই। মেনেডেজের ভাই হোর্হে আর্জেন্টিনার জনপ্রিয় পত্রিকা ক্লারিনকে বলেছেন, ‘আমাদের ও জানিয়েছে, মেসির কাছে সে কৃতজ্ঞ। তাঁর নামটাই ওর জীবন বাঁচিয়েছে।’ তথ্যসূত্র: গোলডটকম।