মেইন ম্যেনু

মেয়াদোত্তীর্ণ বয়লার পেলেই কঠোর ব্যবস্থা: শিল্পমন্ত্রী

শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু বলেছেন, কল-কারখানায় ব্যবহৃত বয়লার যাচাই-বাছাইয়ে অভিযান চালানো হবে। কোথাও মেয়াদোত্তীর্ণ বয়লার পাওয়া গেলে সেই কারখানার মালিকদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।

গাজীপুরের টঙ্গী বিসিক শিল্প নগরীতে বিস্ফোরণের পর আগুনে ক্ষতিগ্রস্ত টাম্পাকো ফয়েলস লিমিটেড কারখানা আজ রোববার সকালে পরিদর্শনে এসে গণমাধ্যমকে এ কথা বলেন তিনি।

সাংবাদিকদের আরেক প্রশ্নের উত্তরে শিল্পমন্ত্রী বলেন, কারখানায় বিস্ফোরণের পর অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় কারও গাফিলতি থেকে থাকলে তাদের শাস্তি দেয়া হবে।

আমির হোসেন আমু বলেন, কারখানায় হতাহতের ঘটনায় তাঁরা সবাই মর্মাহত, শোকাহত। রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রীসহ সবাই এই ঘটনায় শোক প্রকাশ করেছেন। নিহত ব্যক্তিদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানান শিল্পমন্ত্রী।

আমির হোসেন আমু জানান, এই ঘটনায় আহত ব্যক্তিদের প্রয়োজনীয় চিকিৎসার ব্যাপারে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়কে নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। সে অনুযায়ী তাঁদের চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। শ্রম মন্ত্রণালয় থেকে ভুক্তভোগীদের আর্থিক সাহায্য দেওয়া হচ্ছে।

শিল্পমন্ত্রী বলেন, এই ঘটনায় শিল্প মন্ত্রণালয়, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও স্থানীয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। ঘটনাটি কেন ঘটল, তা তদন্ত করে দেখা হবে। এ ধরনের ঘটনা ভবিষ্যতে যাতে আর না ঘটে, সে জন্য আগাম ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আমির হোসেন আমু বলেন, এই ধরনের ঘটনায় তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নিতে সরকার দৃঢ় প্রতিজ্ঞ।

এই সময় মন্ত্রীর সঙ্গে স্থানীয় সংসদ সদস্য জাহিদ আহসান রাসেলসহ প্রশাসনের কর্মকর্তারা ছিলেন।

শনিবার ভোরের দিকে বয়লার বিস্ফোরিত হলে পাঁচ তলা ওই কারখানা ভবনে আগুন ধরে যায়। ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা গভীর রাতে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হন; কিন্তু বিভিন্ন ফ্লোরে মাঝে-মধ্যে আগুনের শিখা দেখা যাচ্ছিল সকালেও।

বিস্ফোরণ ও অগ্নিকাণ্ডের এ ঘটনায় এ পর্যন্ত নিহত হয়েছেন ২৫ জন, আরও প্রায় ৪০ জনকে বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

সিলেটের বিএনপির সাবেক সাংসদ সৈয়দ মো. মকবুল হোসেনের মালিকানাধীন ওই কারখানায় সাড়ে চারশর মতো শ্রমিক থাকলেও শুক্রবার রাতের পালায় ৭৫ জনের মতো কাজ করছিলেন। শনিবার ঈদের ছুটি হওয়ার কথা ছিল।