মেইন ম্যেনু

মেয়েদের ফ্যাশন ব্লান্ডার এড়ানোর টিপস

আমরা রোজ নিজেদের অজান্তে বেশ কিছু ফ্যাশন ব্লান্ডার করে থাকি। অর্থাৎ স্টাইলিংয়ের ভুল ত্রুটি। আজকে রইলো তারই লিস্ট‚ পারলে এগুলো এড়িয়ে চলুন।

জামাকাপড়
আপনি হয়তো সব থেকে ট্রেন্ডি পোশাক পরেছেন। কিন্তু তা যদি কোঁচকানো হয়, সব মাটি। তাই বাড়ি থেকে বেরোনোর আগে অবশ্যই দেখে নিন আপনার পোশাক যেন ইস্ত্রি করা থাকে।

মেকআপ
অনেকেই ভাবেন যত বেশি মেকআপ তত বেশি সুন্দরী লাগবে। কিন্তু এই ধারণা একেবারেই ভুল। দিনের বেলা হালকা মেকআপই ভাল। রাতের জন্য অবশ্য একটু বেশি মেকআপ করতে পারেন। যে রং ব্যবহার করছেন তার দিকেও মনোযোগ দিন। স্কিন টোন অনুযায়ী রং বাছুন। আর মুখের রং এক রকম আর হাতের বা গলার রং যেন আলাদা না হয়, সেই খেয়াল রাখুন।

গয়না
অতিরিক্ত মেকআপের যেমন দরকার নেই, সেইরকমই বেশি গয়নারও দরকার নেই। যা কিছু আছে তা একসঙ্গে পরা একেবারেই বুদ্ধিমানের কাজ হবে না। একটা যে কোন স্টেটমেন্ট জুয়েলারী বেছে নিন। যেমন, একটা নেকলেস বা কানে একটা বড় দুল, তাতেই হবে। কোন উপলক্ষ্যে গয়না পরছেন তাও মাথায় রাখা অত্যন্ত জরুরী।

প্যান্ট
আপনার ফিগার অনুযায়ী প্যান্ট কিনুন। যারা মোটা তারা ছোট প্যান্ট যতটা পারবেন এড়িয়ে চলুন। সাইজে বড় প্যান্টও কিনবেন না, বা লম্বায় বড় প্যান্ট একদম না। অনেকেই ঝুলে লম্বা প্যান্ট কিনে তা গুটিয়ে নিয়ে থাকেন। এই অভ্যাস যত তাড়াতাড়ি পারবেন দূর করুন।

জুতো
আপনার পোশাকের মতই আপনার জুতো জোড়াও অত্যন্ত জরুরী। বহু পুরনো জুতো বা ছেঁড়া জুতো আপনার ফ্যাশনের সব শেষ করে দিতে পারে। তাই সব সময় এক জোড়া দামী জুতো কিনে রাখুন।

ম্যাচিং
অনেকেই মনে করি একই রঙের পোশাক‚ একই রঙের জুতো এবং ব্যাগ নিলে দারুণ দেখাবে, যা একেবারেই ভুল ধারণা। সব সময় এমন কয়েকটি রঙ বেঁছে নিন যা একে অপরকে আকর্ষণ করে। ন্যুড রঙের জুতো বা ব্যাগ নিতে পারেন। এটি যে কোন রঙ বা পোশাকের সঙ্গে ভাল লাগবে।

রিভিলিং
যদি অভ্যস্ত না হন তাহলে লো কাট ব্লাউজ বা মিনি স্কার্ট না পরাই ভাল। লো কাট টপ বা ক্রপ টপ পরতে পারেন জিন্স বা লং স্কার্টের সঙ্গে।

অন্তর্বাস
ফ্যাশনের সব থেকে বড় ব্লান্ডার অন্তর্বাস। এটি সব সময় সঠিক মাপের পরতে চেষ্টা করবেন। ছোট বা বড় সাইজের অন্তর্বাস আপনার স্টাইলটিকে কুৎসিত করে দেবে। তাই দাম বেশি হলেও সঠিক সাইজের অন্তর্বাস কিনুন।