মেইন ম্যেনু

মেয়ের শ্লীলতাহানীতে বাঁধা দেওয়ায় বাবার দুপা ভেঙে দিল বখাটেরা

গোপালগঞ্জের কাশিয়ানীতে মেয়ের শ্লীলতাহানীতে বাঁধা দেওয়ায় বাবা সাহাবুদ্দিন মোল্লার (৫০) দুই পা ভেঙ্গে দিয়েছে বখাটে যুবক সুজন মোল্লা ও তার লোকজন। এ সময় মেয়েটির দুই ভাইকেও মারধর করে আহত করে তারা। রোববার সকালে কাশিয়ানী উপজেলার কামারোল গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

গুরুতর আহত সাহাবুদ্দিন মোল্লা ও তার ছেলে রাসেল মোল্লাকে (২৪) গোপালগঞ্জ ২৫০-শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসাতালে ভর্তি করা হয়েছে। অপর ছেলে কলেজ ছাত্র তাজুল মোল্লাকে (১৮) প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

আহত সাহাবুদ্দিন মোল্যা জানান, তার সপ্তম শ্রেণি পড়ুয়া মেয়ে ঝিলমিলকে প্রতিবেশী মৃত ফায়েক মোল্যার ছেলে সুজন মোল্যা প্রায়ই উত্ত্যক্ত করে আসছিল। গত ৩০ মে রাতে একা থাকার সুযোগে ওই ছাত্রীর ঘরে ঢুকে শ্লীলতাহানীর চেষ্টা করে সুজন। এ সময় মেয়েটি চিৎকার করলে সুজন পলিয়ে যায়।

ঈদের সময় সাহাবুদ্দিন মোল্যার ছেলেরা বাড়িতে এলে ঘটনা শুনে ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে। গতকাল শনিবার বিকেলে বিষয়টি নিয়ে তিলছড়া বাজারে সুজনকে মারধর করে তারা। এ ঘটনায় ক্ষুব্ধ হয়ে আজ রোববার বখাটে সুজন, তার ভাই রাজীব, বিপ্লব ও তার লোকজন লাঠিসোটা নিয়ে সাহাবুদ্দিন ও তার ছেলেদের ওপর হামলা চালায়।

হামলায় সাহাবুদ্দিন মোল্যার দুই পা ভেঙ্গে যায়। এ সময় বাবাকে বাঁচাতে আসলে ছেলে রাসেল মোল্যা ও তাজুল মোল্যাকে মারধর করে সুজন ও তার লোকজন।

কাশিয়ানী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মনিরুল ইসলাম জানিয়েছেন, প্রেম ঘটিত কারণে এ ঘটনা ঘটতে পারে। তবে এখন পর্যন্ত কোনো অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।