মেইন ম্যেনু

মৈত্রীর ডাকে মুসলিম বিশ্বের ৩০ নেতা তুরস্কে

পারস্পরিক দূরত্ব কমিয়ে মুসলিম বিশ্বে মৈত্রী স্থাপনের ডাক দিয়েছে অরগানাইজেশন অব ইসলামিক কো-অপারেশন (ওআইসি)। বিশ্বের ১৭০ কোটি মুসলিমের স্বার্থে মুসলিম দেশগুলোর মধ্যে ঐক্য সংহত করার প্রত্যয়ে তুরস্কে ওআইসির সম্মেলন শুরু হয়েছে।

বৃহস্পতিবার তুরস্কের ঐতিহ্যবাহী শহর ইস্তাম্বুলে ওআইসির শীর্ষ সম্মেলন শুরু হয়েছে। এ সম্মেলনে মুসলিম বিশ্বের ৩০ দেশের নেতারা অংশ নিয়েছেন। সম্মেলন উদ্বোধন করেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান। শুক্রবার এরদোয়ানের সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে সম্মেলন শেষ হবে।

ইস্তাম্বুলে ওআইসির সম্মেলনে অংশ নিয়েছেন সৌদি আরবের বাদশা সালমান বিন আবদুল আজিজ আল সৌদ ও ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি। এ দুটি দেশ সিরিয়া ও ইয়েমেনের গৃহযুদ্ধে বিরোধী অবস্থানে রয়েছে। আর এ দুই দেশকে কেন্দ্র করে মুসলিম বিশ্বের মধ্যে বিভেদ স্পষ্ট হয়ে উঠেছে। ইস্তাম্বুল সম্মেলনেও ইয়েমেন ও সিরিয়া ইস্যু নিয়ে বাকবিত-া হতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

ইস্তাম্বুলে ওআইসি সম্মেলনে রাষ্ট্র ও সরকারপ্রধান মিলে ৩০ নেতা অংশ নিলেও গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি মুসলিম দেশের নেতারা এতে যোগ দেননি। জর্ডানের বাদশা আবদুল্লাহ ও মিশরের প্রেসিডেন্ট আবদেল ফাত্তাহ আল সিসি সম্মেলনে আসেননি।

মিশরে গণতান্ত্রিকভাবে নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ মুরসি ২০১৩ সালে ক্ষমতাচ্যুত হওয়ার পর দেশটির সঙ্গে তুরস্কের সম্পর্ক ভালো যাচ্ছে না। সিরিয়া ইস্যুতে তুরস্কের সঙ্গে জর্ডানের মতপার্থক্য রয়েছে।

তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত ক্যাভুসোগ্লু বলেছেন, এবার এমন সময় সম্মেলন হচ্ছে, যখন মুসলিম বিশ্ব নিজেদের সমস্যা নিয়ে মারাত্মকভাবে ভুগছে। ভাই-ভাইয়ে দ্বন্দ্ব বড় ধরনের সমস্যার সৃষ্টি করছে। বিচ্ছিন্নতাবাদ মুসলিম উম্মাহকে বিভক্ত করেছে।