মেইন ম্যেনু

মোবাইল অপারেটরদের কাছে ৫ কোটি টাকা পাবে বিসিসি

বরিশাল নগরীতে টাওয়ার স্থাপন বাবদ বিভিন্ন মোবাইল অপারেটর কোম্পানির কাছ থেকে ৫ কোটি ১৫ লাখ ৫০ হাজার টাকা পাবে বরিশাল সিটি করপোরেশন (বিসিসি)। এসব টাকা আদায় এবং ঝুঁকিপূর্ণ ভবন থেকে মোবাইল টাওয়ার অপসারণের জন্য বিসিসির নির্বাহী কর্মকর্তাকে আহ্বায়ক করে ১১ সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে।

মঙ্গলবার বিকেলে নগরভবনে এক জরুরি সভায় এসব তথ্য জানানো হয়।

করপোরেশনের বকেয়া রাজস্ব আদায়ের জন্য কঠোর পদক্ষেপ নিতে করপোরেশন কর্তৃপক্ষ পিছপা হবে না বলে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন বিসিসি মেয়র আহসান হাবিব কামাল।

নগরীর বিভিন্ন স্থানে ঝুঁকিপূর্ণ ও ঝুঁকিমুক্ত বহুতল ভবন এবং সমতলে গ্রামীণ ফোন, বাংলালিংক, টেলিটক, সিটিসেল, এয়ারটেল, রবিসহ বিভিন্ন কোম্পানির ১৩৭টি মোবাইল টাওয়ার আছে। ২০১৪-২০১৫ অর্থবছরে এসব মোবাইল কোম্পানির কাছে সিটি করপোরেশনের বকেয়া কর দাঁড়িয়েছে ৫ কোটি ১৫ লাখ ৫০ হাজার টাকা। এর মধ্যে গ্রামীণ ফোনের কাছে ১ কোটি ৭৫ লাখ, বাংলালিংকের কাছে ১ কোটি ২৫ লাখ ৫০ হাজার, এয়ারটেলের কাছে ৫১ লাখ ২৫ হাজার, টেলিটকের কাছে ৬৫ লাখ ৭৫ হাজার, সিটিসেলের কাছে ২৭ লাখ ৫০ হাজার ও রবির কাছে ৭৩ লাখ ৮৫ হাজার টাকা পাওনা রয়েছে।

জরুরি সভায় মেয়র কামাল জানান, এসব বকেয়া টাকা আদায়ের জন্য বেশ কয়েকবার মোবাইল কোম্পানিগুলোর সঙ্গে যোগাযোগ করাসহ লিখিত নোটিশ দেওয়া হয়েছে। কিন্তু তারা বিভিন্ন অজুহাতে এড়িয়ে গেছে।

যেসব ভবনে টাওয়ার স্থাপন করা হয়েছে সেসব ভবনের মালিকদের সঙ্গে আলোচনা শেষে পরবর্তী সময়ে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান মেয়র আহসান হাবিব কামাল।

সভায় উপস্থিত ছিলেন নির্বাহী কর্মকর্তা রণজিৎ কুমার দাস, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ইমতিয়াজ মাহমুদ জুয়েল, প্যানেল মেয়র এ কে এম শহিদুল্লাহ, প্যানেল মেয়র-২ মোশারেফ আলী খান বাদশা, প্যানেল মেয়র শরীফ তাসলিমা কালাম পলি, কাউন্সিলর আলতাফ মাহমুদ সিকদার, আক্তারুজ্জামান গাজী (হিরু), সেলিম হাওলাদার, মীর জাহিদুল কবির, হাবিবুর রহমান টিপু, ফরিদ উদ্দিন হাওলাদার, মাইনুল হক, ইউনুস মিয়া, মেহেদি পারভেজ আবির, খায়রুল মামুন, হুমায়ুন কবির, বিসিসির প্রধান প্রকৌশলী মো. নুরুল ইসলামসহ বিভিন্ন ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত আসনে কাউন্সিলর ও করপোরেশনের কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ।