মেইন ম্যেনু

মোশন সিকনেস কমিয়ে আনুন এই ৬টি উপায়ে

কিছু মানুষের যেমন ভ্রমণেই আনন্দ, কারও কারও আবার ভ্রমণের কথা শুনলেই গায়ে জ্বর আসে। কারণ আর কিছুই না, মোশন সিকনেস। দুরপাল্লা এমন মাঝারি দুরত্বের কোনো জায়গায় গেলেও তাদের শরীর গুলিয়ে ওঠে, মাথা ধরে থাকে পুরো রাস্তা। বমির ওষুধ খাওয়া পড়ে হরহামেশাই, কিন্তু বিশ্রী অনুভূতিটা ঠিকই থাকে। আর নয়, আজ জেনে নিন একদম প্রাকৃতিক উপায়ে মোশন সিকনেস কমিয়ে আনার ৬টি দারুণ উপায়।

১) আদা
বাস, ট্রেন এমনকি পানিপথের ভ্রমণে আপনার কাজে আসবে আদা। আদায় জিনজারল নামের কিছু অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট থাকে যা মোশন সিকনেস, কার সিকনেস এবং সি-সিকনেস দূর করতে কার্যকরী। Foods That Harm, Foods That Heal বই অনুযায়ী, একটি গবেষণায় দেখা যায় মোশন সিকনেসের ওষুধের মতই কার্যকরী হলো আদা। আপনি জিনজার এল (এক ধরণের ঝাঁঝালো পানীয়) অথবা শুকনো আদা খেতে পারেন মোশন সিকনেস দূর করতে।

২) ভিটামিন বি ৬
Obstetrics and Gynecology জার্নালের এক গবেষণায় গর্ভবতী নারীদের মোশন সিকনেস দূর করতে ভিটামিন বি ৬ এর কার্যকারিতা দেখা যায়। আপনার ডাক্তারের সাথে কথা বলে দেখতে পারেন মোশন সিকনেস দূর করার এই উপায়টি আপনিও ব্যবহার করতে পারবেন কিনা।

৩) কব্জির প্রেশার পয়েন্ট
আপনার মধ্যমা এবং তর্জনী দিয়ে অথবা বৃদ্ধাঙ্গুলি দিয়ে কব্জির প্রেশার পয়েন্টে চাপ দিন। কব্জির ভাঁজ থেকে দুই ইঞ্চি ওপরে দুই টেন্ডনের মাঝে চাপ প্রয়োগ করুন এভাবে। চাইনিজ মেডিসিন অনুযায়ী এই জায়গাটাকে পেরিকার্ডিয়াম পাথওয়ের ষষ্ঠ বিন্দু বলা হয়। আকুপাংচার এবং আকুপ্রেশারেও বমি ভাব দূর করতে এই জায়গাটির ব্যবহার করা হয়।

৪) গাড়ির পেছন দিকে বসবেন না
আমাদের শরীর, অন্তঃকর্ণ এবং চোখ থেকে মস্তিষ্কে যেসব সিগন্যাল যায় সেগুলোর মাঝে যদি তারতম্য থাকে, তবেই দেখা যায় মোশন সিকনেস। আপনি যদি গাড়ির সামনের দিকে বসেন এবং সোজা দিগন্তের দিকে তাকিয়ে থাকেন, তাহলে আপনার মস্তিষ্ক অনেকটা স্থিতিশীল থাকবে।

৫) কখনোই খালি পেটে ভ্রমণ করবেন না
পানিপথে, আকাশপথে অথবা গাড়িতে কখনো খালি পেটে ভ্রমণ করবেন না। অনেকেই ভাবেন পেট খালি থাকলে বমি হবে না, কিন্তু এটা মোটেই ভালো বুদ্ধি নয়। এতে মোশন সিকনেস আরও বাড়বে। তবে একেবারে ভরাপেটেও গাড়িতে উঠবেন না। বেশি করে পানি পান করুন এবং অল্প অল্প করে খান।

৬) অ্যারোমাথেরাপি
এসেনশিয়াল অয়েল কারও কারও ক্ষেত্রে কাজে লাগতে পারে। আমাদের দেশে মূলত লেবুর পাতা নাকের কাছে ধরলে অনেকের বমি ভাব সেরে যেতে দেখা যায়। শরীরের অন্যান্য ইন্দ্রিয়কে উদ্দিপ্ত করলে মোশন সিকনেস কেটে যাবে- এটাই হলো কারণ। আদা, পিপারমিন্ট বা ল্যাভেন্ডারের মতো এসেনশিয়াল অয়েলগুলো এক্ষেত্রে কাজে আসতে পারে।