মেইন ম্যেনু

মোহামেডানের দুরন্ত জয়

নাগরিকত্ব দেওয়ার ব্যাপারে যখন ইসমাইল বাঙ্গুরাদের নিয়ে বেশ আলোচনা-সমালোচনা হচ্ছে, তখনই গোল করে নিজের প্রয়োজনীয়তা বুঝিয়ে দিলেন এই আফ্রিকান। মূলতঃ ইসমাইল বাঙ্গুরা আর জুয়েল রানার গোলেই টিম বিজেএমসির বিপক্ষে ২-১ গোলের দুরন্ত এক জয় পেয়েছে ঐতিহ্যবাহী মোহামেডান ক্লাব।

শনিবার বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ম্যাচে মোহামেডান পিছিয়ে পড়েও ২-১ গোলে হারিয়েছে বিজেএমসিকে। এ জয়ে মোহামেডান পৌছে গেলো পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে থাকা শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাবের আরও কাছে। ১২ ম্যাচে জামালের পয়েন্ট ২৭, মোহামেডানের ২৬। ৮০ মিনিট পর্যন্ত এগিয়ে থাকা বিজেএমসি মাঠ ছেড়েছে পরাজয়ের গ্লানি নিয়ে। ৯ পয়েন্ট নিয়ে অষ্টম স্থানে সার্ভিসেস দলটি।

মোহামেডানের এ জয়ের নায়ক জুয়েল ও বাঙ্গুরা। তবে জুয়েলের অবদানটাই বেশি। জাতীয় দলের তরুন এ উইঙ্গার এ ম্যাচে নিজেকে সেভাবে মেলে ধরতে না পারলেও কাজের কাজ ঠিকই করেছেন। গোল করিয়ে সমতায় এনেছেন, গোল করে দলকে জিতিয়েছেন।

প্রথমার্ধে চড়াও হয়ে খেলে বিজেএমসি জয়ের দিকেই এগিয়ে চলছিল। কিন্তু শেষ ১০ মিনিটের মোহামেডান-ঝড় সামাল দিতে পারেনি তারা। মুঠোয় থাকা তিন পয়েন্ট হাতছাড়া করে শূন্যহাতে ঘরে ফিরেছে তারা।

Mohammedan1গোল করে জুয়েল আর ইসমাইল বাঙ্গুরা যেমন নায়ক, তেমন গোল ঠেকিয়ে নায়ক আশরাফুল হক রানা। মোহামেডানের এ গোলরক্ষক গোটা তিনেক দুর্দান্ত সেভ না করলে জুয়েল রানা ও বাঙ্গুরার গোলে শুধু ব্যবধানই কমতো। পোস্টের নিচে দেয়াল হয়ে দাঁড়িয়েছিলেন তিনি। সমর্থকদের চোখে ম্যাচ সেরা গোলরক্ষক রানা।

গোলপোস্টের নিচে রানা-দেয়াল ভেঙ্গেছিল ৫৯ মিনিটে। ভেঙ্গে ফেলেন বিজেএমসির ফরোয়ার্ড এলিটা কিংসলে। গোল করে এগিয়ে দেন দলকে।

৬৭ মিনিটে নাবিব নওয়াজ জীবন গোলরক্ষককে একা পেয়েও গোল করতে পারেননি। তার শট চমৎকারভাবে ফিরিয়ে দেন মোহামেডানের গোলরক্ষক রানা। ৮০ মিনিটে বাঁ প্রান্ত থেকে জুয়েল রানার ক্রসে হেড করে বিজেএমসির জালে বল পাঠিয়ে সমতা আনেন মোহামেডান ফরোয়ার্ড ইসমাইল বাঙ্গুরা। ৮৭ মিনিটে ক্যামেরুনের মিডফিল্ডার বেলিঙ্গা আমাবারার কর্নারে দারুন হেডে জালে বল পাঠান জুয়েল রানা (২-১)।