মেইন ম্যেনু

যত্রতত্র মানসিক হাসপাতাল স্থাপনে আসছে নিষেধাজ্ঞা

মানসিক স্বাস্থ্য সেবায় শৃঙ্খলা ফেরাতে নতুন আইন করার উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। ‘মানসিক স্বাস্থ্য আইন-২০১৬’ নামে প্রস্তাবিত এ আইনের খসড়া তৈরি করা হয়েছে। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের তৈরি আইনের খসড়া প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদনের অপেক্ষায় আছে। অনুমোদন পেলে মন্ত্রিসভায় উপস্থাপন করা হবে।

আইনের খসড়ায় অ্যালকোহল অথবা অনান্য নেশায় আসক্ত ব্যক্তিদের চিকিৎসা কিংবা পুনর্বাসনের কথা বলে বেসরকারি উদ্যোগে যত্রতত্র মানসিক হাসপাতাল, মানসিক রোগ নিরাময় কেন্দ্র, মানসিক ক্লিনিক কিংবা হাসপাতাল প্রতিষ্ঠায় বিধিনিষেধ আরোপের প্রস্তাব করা হয়েছে।

প্রস্তাবিত আইনে বলা হয়েছে, বেসরকারি উদ্যোগে মানসিক চিকিৎসায় হাসপাতাল কিংবা পুনর্বাসন কেন্দ্র প্রতিষ্ঠায় লাইসেন্স বাধ্যতামূলক। একই সঙ্গে এ ধরনের হাসপাতাল কিংবা সেবাকেন্দ্র প্রতিষ্ঠায় অনুমোদন ও দেখভালে একটি কর্তৃপক্ষ গঠনেরও প্রস্তাব করা হয়েছে ওই আইনে।

মানসিক চিকিৎসায় যেসব হাসপাতাল ইতোমধ্যে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে প্রস্তাবিত আইন কার্যকরের ৬ মাসের মধ্যে সেসব প্রতিষ্ঠানকে বিধি মোতাবেক কর্তৃপক্ষ থেকে লাইসেন্স বাধ্যতামূলক করারও প্রস্তাব করা হয়েছে।

আইনের লঙ্ঘনে অভিযুক্ত প্রতিষ্ঠানকে আর্থিক জরিমানা ও মালিককে সশ্রম কারাদণ্ডের বিধানও সংযোজন করা হয়েছে। এক্ষেত্রে আইনের ব্যত্যয় হলে প্রতিষ্ঠান মালিককে অনধিক ২ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড, ৫ লাখ টাকা জরিমানা অথবা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত করারও বিধান সংযোজনের প্রস্তাব রাখা হয়েছে। আইনের ব্যত্যয়ে দ্বিতীয় দফায় প্রতিষ্ঠান মালিককে ৫ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড এবং ২০ লাখ টাকা জরিমানা এবং উভয় দণ্ডে দণ্ডিত করারও বিধান থাকছে।

প্রস্তাবিত আইনে মানসিক স্বাস্থ্য সেবায় সরকারি সব হাসপাতালের পরিচালক ও কর্মকর্তাদের অনিয়মে দণ্ডিত করার বিধান সংযোজনের প্রস্তাব করা হয়েছে।