মেইন ম্যেনু

যাদের লাশ নিচ্ছে না পরিবার, তাদের জন্য খালেদার কান্না কেন

সরকারের জঙ্গিবিরোধী অভিযানে সন্দেহভাজনদের কেন গুলি করা হচ্ছে-বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া এমন বক্তব্য দিয়ে তিনি জঙ্গিদের সঙ্গে তার সম্পর্কের প্রমাণ দিয়েছেন বলে মন্তব্য করেছেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু। তিনি বলেন, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর অভিযানে যারা নিহত হয়েছেন তারা সবাই আত্মস্বীকৃত জঙ্গি। স্বজনরাও যখন তাদের লাশ নিতে চাইছেন না তখন খালেদা জিয়া কেন তাদের পক্ষে কথা বলছেন।

সকালে রাজধানীতে জাসদ কার্যালয়ে দলের কার্যনির্বাহী কমিটির সভার আগে এ কথা বলেন তথ্যমন্ত্রী।

গত ২৬ জুলাই রাজধানীর কল্যাণপুর ও ২৭ আগস্ট নারায়ণগঞ্জের পাইকপাড়ায় জঙ্গি আস্তানায় পুলিশের অভিযানে নিহত হয় মোট ১২ জন। এরা সবাই জঙ্গিগোষ্ঠীর সদস্য বলে জানিয়েছে পুলিশ। আর নিহতদের একজন সাম্প্রতিক জঙ্গি তৎপরতায় নাটের গুরু হিসেবে চিহ্নিত তামিম চৌধুরী বলে নিশ্চিত করেছে সরকার।

তবে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর এসব অভিযান নিয়ে প্রশ্ন তুলে গত বৃহস্পতিবার বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া বলেছেন, ‘ওদেরকে গুলি করে মারা হচ্ছে কেন? দেশে আইন আছে, আদালত আছে। এর কারণ কি? এর পেছনে নিশ্চয়ই গোপন রহস্য আছে।’

খালেদা জিয়া বলেন, ‘কিছু মানুষ তাদের (আইনশৃঙ্খলা বাহিনী) কাছে ধরা থাকে। কিছুদিন পর দাঁড়ি, চুল বড় হয় পরে তাদের সামনে নিয়ে আসে। বলা হয় এরা জেএমবি, হরকাতুল জিহাদ। এরা মানুষ হত্যা করেছে। কিন্তু পরে তাদের কাছ কি তথ্য পাওয়া যায় তা প্রকাশ করা হয় না।’

বিএনপি চেয়ারপারসনের এমন বক্তব্যের জবাবে ইনু বলেন, ‘যেসব জঙ্গিরা ধরা পড়ছে তারা স্বঘোষিত, আত্মস্বীকৃত জঙ্গি। তাদের বিষয়ে কারও কোনো সংশয় নেই। তাদের পরিবারও লাশ নিতে চাচ্ছে না। এখন খালেদা জিয়া কেন তাদেরকে নিরপাধের লেভেল লাগাচ্ছেন?’

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘খালেদা জিয়া জঙ্গিদের বিষয়ে যে মায়াকান্না দেখিয়েছেন, এতে প্রমাণ হয়েছে জঙ্গিদের ডাইরেক্ট পার্টনার তিনি। তিনি জঙ্গিদের বিষয়ে বিভ্রান্তি তৈরির চেষ্টা করছেন, তাদেরকে বাঁচানোর চেষ্টা করছেন।’

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘সামরিক জান্তাদের হাত ধরে এ দেশ জঙ্গিবাদের উত্থান হয়েছে। এখন জঙ্গিদের পৃষ্ঠপোষকতা করে আসছে বিএনপি-জামায়াত আর যুদ্ধাপরাধীরা।’ তিনি বলেন, ‘এই জঙ্গি ও তাদের রাজনৈতিক পার্টনারদের একঘরে কতে হবে। প্রতিহত করতে হবে। তাদের বিষয়ে আমাদের রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত নিতে হবে।