মেইন ম্যেনু

৫ মে স্মরণে রাজধানীতে আলোচনা ও দোয়া

‘যাদের হাত হেফাজত কর্মীদের রক্তে রঞ্জিত তাদের সাথে আপোষ নয়’

হেফাজতে ইসলামের নেতারা বলেছেন, যাদের হাত ৫ মে শাপলা চত্বরে হেফাজত কর্মীদের রক্তে রঞ্জিত তাদের সাথে হেফাজতের কোন রকমের আপোষ হতে পারেনা। পরিবেশ পরিস্থিতির কারণে হেফাজত এখন ধৈয্য ধারণ করছে। ৫ মে’র ঘটনার ব্যাপারে কথা বলতে পারছেনা। মুখ বন্ধ করে রাখা হয়েছে তবেসময় সুযোগ মতো শাপলা চত্বরের ঘটনার জবাব দেয়া হবে।

৫ মে স্মরণে আজ বৃহস্পতিবার হেফাজত ঢাকা মহানগর আয়োজিত এক আলোচনা সভা ও দোয়া অনুষ্ঠানে হেফাজত নেতারা এই কথা বলেন।

অনুষ্ঠোনের সভাপতি কেন্দ্রীয় নায়েবে আমীর ও ঢাকা মহানগরীর আহবায়ক আল্লামা নূর হোসাইন কাসেমী বলেন, ২০১৩ সালের ৫মে রাজধানীর শাপলা চত্বরের ঘটনায় যারা শাহাদাত বরণ করেছেন তারা ঈমান আকীদা রক্ষার সংগ্রামের ইতিহাস রচনা করেছেন। তাদের ইতিহাস ইসলামের বৃক্ষকে তরতাজা রাখার ইতিহাস। আগামীতে শত শত বছর এই ইতিহাস জাতিকে ত্যাগ ও কুরবানীর শিক্ষা দেবে। তারা সফল হয়েছেন। তিনি বলেন, হেফাজতকে নিয়ে হতাশার কোন কারণ নেই। হেফাজত ছিল এবং থাকবে। ১৩দফা দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত হেফাজতের আন্দোলন চলবে। হেফাজত শান্তিপুর্ণভাবে আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছে। আমাদের আমীর আমাদেরকে ধৈয্য ধারণ করতে বলেছেন, আমরা ধৈয্য ধারণ করছি।

বারাধারা মাদরাসায় অস্থায়ী কার্যালয়ে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন: হেফাজতের ঢাকা মহানগরীর যুগ্ম আহবায়ক মাও. আবুল কালাম, ড. আহমদ আব্দুল কাদের, অধ্যাপক আব্দুল করিম, সদস্য সচিব মাওলানা জুনায়েদ আল হাবিব, যুগ্ম সদস্য সচিব মাওলানা ফজুলল করীম কাসেমী, মাওলানা আহমদ আলী কাসেমী, মাওলানা শফিক উদ্দিন, মাও. নাজমুল হাসান, মুফতী মুনীর হোসাইন, যাত্রাবাড়ী জোনের নেতা মাওলানা শরীফুল্লাহ, গাবতলী জোনের মাওলানা ফয়সাল আহমেদ, মাও. নূর মোহাম্মদ কাসেমী, মাও. রবিউল ইসলাম ও মাও. হাবীবুল্লাহ ইসলামপুরী প্রমুখ।

মাওলানা জুনায়েদ আল হাবিব বলেন, হেফাজত কারো সাথে আতাত করেনি, করতে পারেনা, করবেনা। যারা এমন কথা বলেন, তাদের উদ্দেশ্যে বলতে চাই, পুলিশ ছাড়া আসুক। তাহলে বুঝা যাবে কত ধানে কত চাল। তিনি বলেন, হেফাজত কারে মাথা নত করেনি করবেনা। হেফাজত শুধু বাংলাদেশ নয়, পুথিবীব্যাপী একটি শক্ত মজবুত সংগঠন।

ড. আহমেদ আব্দুল কাদের বলেন, যাদের হাতে হেফাজত কর্মীদের রক্ত রঞ্জিত হয়েছে তাদের সাথে আপোষ করার কোন সুযোগ নেই। মুরতাদদের সাথে কোন আপোষ হতে পারেনা।

মাওলানা আহমদ আলী কাসেমী বলেন, যুগ যুগ ধরে জাতি ৫ মে কে স্মরণ রাখবে। শাপলা চত্বরের ঘটনার জবাব জাতি দেবে। এখন আমাদের মুখ বন্ধ করে রাখা হয়েছে। সুযোগ পেলে জাতি শাপলা চত্বরের জবাব দেবে।

মাওলানা ফজলুল করীম কাসেমী বলেন, কিছু মিডিয়া হেফাজতে খোঁচা দিয়ে লিখছে। যারা আমাদেরকে রক্তাক্ত করেছে, আমাদের ওপর জুলুম করেছে তাদের সাথে আপোষ হতে পারেনা। যারা আপোষ করবে তারা সরকার ও নাস্তিকদের দালাল।