মেইন ম্যেনু

যুক্তরাজ্যের নতুন প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে!

যুক্তরাজ্যের পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী পদে এখন একমাত্র প্রার্থী থেরেসা মে।

কনজারভেটিভ দলের নেতা নির্বাচনের দৌঁড় থেকে আন্দ্রে লিডসম সরে দাঁড়ানোয় দলের নেতা নির্বাচনের পথে থেরেসা মের সামনে আর কোনো বাধা থাকল না। সে হিসেবে ব্রিটেনের নতুন প্রধানমন্ত্রী হতে যাচ্ছেন থেরেসা।

বর্তমান প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরনের ক্ষমতা হস্তান্তর নিয়ে এখন আলাপ-আলোচনা চলছে। আর কয়েকদিনের মধ্যে তিনি ক্ষমতা ছেড়ে দিতে পারেন।

লিডসাম বলেন, যুক্তরাজ্যের এখন প্রয়োজন একটি শক্তিশালী ও স্থিতিশীল সরকার। থেরেসা মে ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে বেরিয়ে যাওয়ার ব্যাপারে যুক্তরাজ্যের জনগণের সিদ্ধান্ত কার্যকর করতে সক্ষম। ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে বেরিয়ে যাওয়ার পক্ষে প্রচারাভিযান চালিয়েছিলেন লিডসাম। পক্ষান্তরে ৫৯ বছর বয়স্ক থেরেসা মে প্রচার চালিয়েছিলেন ইউনিয়নে থেকে যাওয়ার পক্ষে।

থেরেসা মে সংক্ষিপ্ত এক বক্তৃতায় বলেন, ‘ব্রেক্সিট মানে ব্রেক্সিট এবং আমরা একে সফল করে তুলতে যাচ্ছি।’

ওয়েস্ট মিনিস্টারে দেওয়া এক বিবৃতিতে লিডসাম বলেন, যুক্তরাজ্যের এই ‘সন্ধিক্ষণে’ নেতৃত্বের লড়াই খুবই অনাকাঙ্খিত। তিনি বলেন, ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে বেরিয়ে যাওয়ার কাজ শুরু করার জন্য এখন একটি শক্তিশালী নেতৃত্ব খুবই জরুরি।

তিনি বলেন, থেরেসা মে কনজারভেটিভ এমপিদের ৬০ শতাংশেরও বেশি সমর্থন আদায় করতে সক্ষম হয়েছে। এ ছাড়া ব্রেক্সিট বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে আদর্শগতভাবে তিনি একটি চমৎকার অবস্থানে রয়েছে। ৮৪ জন সহকর্মী সমর্থন জানানোয় লিডসাম তাদের প্রতি আন্তরিক কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।