মেইন ম্যেনু

যুক্তরাজ্যে আশ্রয় পাচ্ছেন মালদ্বীপের সাবেক প্রেসিডেন্ট!

মালদ্বীপের সাবেক প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ নাশিদ যুক্তরাজ্যে রাজনৈতিক আশ্রয় পেয়েছেন। তার আইনজীবীর বরাত দিয়ে এ খবর জানিয়েছে বিবিসি।

গতবছর বিরোধী দলের এই নেতাকে বিতর্কিতভাবে সন্ত্রাস বিরোধী আইনের আওতায় ১৩ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছিল স্থানীয় আদালত। এরপরও চিকিৎসার জন্য তাকে যুক্তরাজ্য যাওয়ার অনুমতি দিয়েছিল মালদ্বীপ সরকার। কিন্তু সোমবার তার আইনজীবী হাসান লতিফ বিবিসি-কে বলেছেন, যুক্তরাজ্য সরকার নাশিদকে সে দেশে রাজনৈতিক আশ্রয় দিতে রাজি হয়েছে। তবে এ বিষয়ে এখনো কোনো মন্তব্য করেনি ব্রিটিশ সরকার।

মালদ্বীপ সরকার বলছে, এ বিষয়ে নিশ্চিত হওয়ার পরই তারা ব্যবস্থা নেবে। তারা আরো বলছে, ব্রিটিশ সরকারের এই সিদ্ধান্তে তারা আহত। কেননা সাজাপ্রাপ্ত একজন ব্যক্তিকে রাজনৈতিক আশ্রয় দিতে পারে না যুক্তরাজ্য সরকার।

সাবেক মানবাধিকার কর্মী মোহাম্মদ নাশিদ ২০০৮ সালে মালদ্বীপের প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হয়েছিলেন। তিনি ছিলেন দেশটিতে গণতান্ত্রিকভাবে নির্বাচিত প্রথম শাসক। ২০১২ সালে সেনা অভ্যূত্থানের মুখে ক্ষমতাচ্যুত হন মালদ্বীপের এই নেতা। ২০১৪ সালে মন্ত্রাসী তৎপরতার অভিযোগে তাকে ১৩ বছরের কারাদণ্ডে দণ্ডিত করা হয়।

চলতি বছরের জানুয়ারি মাসে উন্নত চিকিৎসার জন্য যুক্তরাজ্যের উদ্দেশে মালদ্বীপ ছাড়লেন দেশটির বিরোধী দলীয় নেতা ও সাবেক প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ নাশিদ। চিকিৎসা শেষে দেশে ফিরে আসবেন এমন নিশ্চয়তা দিয়ে নাশিদের ভাই জামিনদার হওয়ার পরেই তাকে দেশ ত্যাগের অনুমতি দেয় সরকার। অবশ্য তখন আন্তর্জাতিক চাপের মুখেই নাশিদকে ছেড়ে দিতে বাধ্য হয়েছিল মালদ্বীপ সরকার।