মেইন ম্যেনু

যুক্তরাষ্ট্রের কাছে অবস্থান স্পষ্ট করেছে বিএনপি

যুক্তরাষ্ট্রের কাছে নিজেদের অবস্থান স্পষ্ট করেছে বিএনপি। দলটির পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়া ব্যাতিরেকে অন্য কোনো সিস্টেম আজকের বিশ্বে গ্রহণযোগ্য হতে পারে না এটা প্রমাণিত। বাংলাদেশ এবং যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে পারস্পারিক সম্পর্ক আরো জোরদার করা যাবে যদি গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়াকে শক্তিশালী করা যায়।

সোমবার বেলা ১১টায় বিএনপি চেয়ারপারসনের বেগম খালেদা জিয়ার সঙ্গে তার বাসভবনে বৈঠক করেন সফররত মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের রাজনৈতিক বিষয়ক আন্ডার সেক্রেটারি থমাস শ্যানন। বৈঠক শেষে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আব্দুল মঈন খান সাংবাদিকদের সময় এসব কথা জানান।

প্রায় ঘণ্টাব্যাপী বৈঠকে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আব্দুল মঈন খান, পররাষ্ট্র বিষয়ক উপদেষ্টা রিয়াজ রহমান এবং সাবিহ উদ্দিন উপস্থিত ছিলেন।

মঈন খান বলেন, ‘আমরা বলেছি, বিশ্বে মানুষ এখন শান্তি চায়, গণতন্ত্র চায়। সারা বিশ্বে এখন মানুষের কাছে মানবাধিকার এবং গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়া ব্যাতিরেকে অন্য কোনো সিস্টেম গ্রহণযোগ্য হতে পারে না। আমরা আমাদের বক্তব্য তাদের কাছে স্পষ্ট করে তুলে ধরেছি।’

মঈন খান বলেন, ‘বিএনপি একটি উদারগণতান্ত্রিক রাজনৈতিক দল আমরা গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় বিশ্বাস করি এবং গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ার মাধ্যমে ক্ষমতা হস্তান্তরে বিশ্বাস করি বলেও বলেছি তাদের।’

বাংলাদেশ যুক্তরাষ্ট্র সম্পর্ক জোরদার প্রসঙ্গে তিনি জানান, ‘বাংলাদেশের মানুষে যাতে তাদের ইচ্ছা নির্ভয়ে প্রকাশ করতে পারে সেই সুযোগ চায়। বাংলাদেশ এবং যুক্তরাষ্ট্রের সাথে পারস্পারিক সম্পর্ক আরো জোরদার হবে যদি গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়াকে পুনরায় শক্তিশালী করা যায় এবং গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠানগুলোকে এটাই বাংলাদেশের ১৬ কোটি মানুষের কাম্য। গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ার মাধ্যমে উন্নয়নের প্রক্রিয়া শক্তিশালী এবং জোরদার করা যাবে।’