মেইন ম্যেনু

‘যুক্তরাষ্ট্রে জামায়াত সন্ত্রাসী সংগঠন নয়’

জামায়াতে ইসলামীকে সন্ত্রাসী সংগঠন হিসাবে যুক্তরাষ্ট্র চিহ্নিত করেনি। বরং যুক্তরাষ্ট্রের উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তাদের সাথে আলাপকালে বাংলাদেশের পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী জামায়াতকে সন্ত্রাসী সংগঠন হিসাবে আখ্যায়িত করেছেন।

ঢাকার মার্কিন দূতাবাসের মুখপাত্র এক প্রশ্নের জবাবে এসব কথা জানান।

গত বৃহস্পতিবার যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দফতরের জননিরাপত্তা, গণতন্ত্র ও মানবাধিকার বিষয়ক আন্ডার সেক্রেটারি সারাহ সিওয়াল ও হোমল্যান্ড সিকিউরিটির আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিষয়ক সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যালেন বার্সিনের সাথে বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম বলেন, জামায়াত যে একটি সন্ত্রাসবাদী সংগঠন এর আগে তা যুক্তরাষ্ট্রকে বোঝাতে বেগ পেতে হয়েছিল। তবে এবার সেটা তারা অনুধাবন করতে পেরেছে।

মুখপাত্র বলেন, আন্ডার সেক্রেটারি সিওয়ালের নেতৃত্বে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিনিধি দল বাংলাদেশের সরকারি কর্মকর্তা ও নাগরিক সমাজের নেতৃবৃন্দের সাথে বিস্তৃত ইস্যুতে ফলপ্রসু বৈঠক করেছেন। আন্ডার সেক্রেটারি নিশ্চিত করেছেন যে নিরাপত্তা ও সহিংস চরমপন্থাসহ বিভিন্ন ইস্যুতে যুক্তরাষ্ট্রের জন্য বাংলাদেশ একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশীদার।

তিনি জনগণের মত প্রকাশের স্বাধীনতা, শান্তিপূর্ণভাবে বিরোধী রাজনৈতিক দলের কর্মকাণ্ড পরিচালনা করার অধিকার, রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে পারস্পরিক বিশ্বাস স্থাপন, আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ও জনগণের মধ্যে আস্থার সম্পর্ক স্থাপন ও ধর্ম চর্চার স্বাধীনতাকে সহিংস চরমপন্থার বিরুদ্ধে লড়াইয়ের টেকসই পন্থা হিসাবে উল্লেখ করেন।

অ্যাভিয়েশন সিকিউরিটি (বিমান নিরাপত্তা) উন্নত করতে বাংলাদেশের প্রতিশ্রুতির প্রশংসা করে মুখপাত্র বলেন, নিরাপত্তার বিস্তৃত ইস্যুতে বাংলাদেশ সরকারের সাথে আমরা কাজ করছি।

অ্যাভিয়েশন সিকিউরিটিসহ অন্যান্য নিরাপত্তা ইস্যুতে সহযোগিতা নিয়ে সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যালেন বার্সিনের নেতৃত্বে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিনিধি দল বাংলাদেশ সরকারের কর্মকর্তাদের সাথে আলোচনা করেছেন।

সূত্র: নয়া দিগন্ত।