মেইন ম্যেনু

যুক্তরাষ্ট্রে দম্পতি খুনে তাদের ২ ছেলে আটক

যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ায় বাংলাদেশি দম্পতি খুনে জড়িত সন্দেহে তাদের দুই ছেলেকে আটক করা হয়েছে। অঙ্গরাজ্যের সান হোসে শহরের নিজ বাড়ি থেকে গত শনিবার প্রকৌশলী গোলাম রাব্বি ও তার স্ত্রী হিসাবরক্ষক শামিমা রাব্বির লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

খুনের সঙ্গে জড়িত সন্দেহে এ দম্পতির বড় ছেলে হাসিব রাব্বি (২৩) এবং ১৭ বছরের আরেক ছেলেকে (নাম প্রকাশ করা হয়নি) গত বুধবার আটক করে পুলিশ। তাদেরকে এরই মধ্যে সান্টা ক্লারা কাউন্টি কারাগারে নেয়া হয়েছে।

তদন্তকারী পুলিশ কর্মকর্তারা জানায়, ঘটনার পরপরই মনে করা হয়েছিল, পরিচিত কেউ এ খুনে জড়িত। রাব্বি-শামিমা স্থানীয় ইসলামী এবং বাংলাদেশি সম্প্রদায়ের নানা তত্পরতায় সক্রিয় ছিলেন। তারা পাশের এভারগ্রিন ইসলামিক সেন্টারে নামাজ পড়তে যেতেন।
শুরুতেই পুলিশ বলছিল যে, এটি বিদ্বেষপ্রসূত হামলা নয়। নিহতদের লাশের সঙ্গে একটি চিরকুটও পাওয়া যায়। তাতে লেখা ছিল, ‘দুঃখিত, আমার প্রথম খুনটি বিরক্তিকর হয়ে গেল।’

এ ছাড়া তদন্ত কর্মকর্তারা ওই বাড়ির দেয়ালে আরেকটি বার্তা দেখতে পান। তাতে লেখা, ‘তোমার মতো আমি মিথ্যাবাদী হতে পারব না। আমি ওদের (মা-বাবা) অজ্ঞাতে অথবা সম্মতি ছাড়া কাউকে ভালোবাসতে পারব না।’ ঘটনার পরপরই এ দম্পতির ছোট ছেলেকে জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশ। তার দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে পরে বড় ছেলেকেও আটক করে পুলিশ। মরদেহ উদ্ধারের সময় এ দম্পতির দুই ছেলের কেউ বাড়িতে ছিলেন না।

১৯৭৬ সালে গোলাম রাব্বি যুক্তরাষ্ট্রে আসেন। বগুড়ার বাসিন্দা গোলাম রাব্বি ৯ বোন, দুই ভাইয়ের মধ্যে পঞ্চম। রাব্বির তিন বোন মারা গেছে। বাকি চার বোন যুক্তরাষ্ট্রের বাসিন্দা। একমাত্র ভাই বাংলাদেশে বসবাস করছেন।

এদিকে রাব্বি দম্পতির মরদেহ দাফনের জন্য দ্রুত স্বজনদের কাছে হস্তান্তরের আশা করছেন এভারগ্রিন ইসলামিক সেন্টারের কর্মকর্তারা।