মেইন ম্যেনু

যুবাদের উদ্বুদ্ধ করলেন মাশরাফি

দরজায় কড়া নাড়ছে অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের আসর। আর মাত্র সপ্তাহ তিনেক পর বাংলাদেশে বসবে যুবাদের বিশ্বকাপের ১১তম আসর। তার আগে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দলের ক্রিকেটারদের উজ্জীবিত করলেন জাতীয় দলের ওয়ানডে এবং টি২০ অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা।

বুধবার বাংলাদেশ জাতীয় দলের অনুশীলন যখন প্রায় শেষের পথে, ঠিক তখনই একে একে মিরপুর একাডেমি মাঠে প্রবেশ করলেন অনূর্ধ্ব-১৯ দলের ক্রিকেটাররা। সিনিয়র ক্রিকেটারদের পাশেই কঠোর অনুশীলন করলেন জুনিয়ররা। আগামী ২৭ জানুয়ারি দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে স্বাগতিক বাংলাদেশের ম্যাচ দিয়ে পর্দা উঠবে যুব বিশ্বকাপের। তবে এখন পর্যন্ত কাপ পর্বের শেষ চারে কখনোই খেলা হয়ে ওঠেনি বাংলাদেশের। প্রতিবার ভালো দল নিয়ে খেললেও শেষ পর্যন্ত সাফল্যের দেখা পাননি জুনিয়র টাইগাররা।

হালকা অনুশীলনের পর বাংলাদেশের তরুণ ক্রিকেটাররা ঢুকলেন একাডেমির একটি কক্ষে। যেখানে উপস্থিত জাতীয় দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা, যুবাদের টেকনিক্যাল ডিরেক্টর স্টুয়ার্ট ল, যুবাদের কোচ মিজানুর রহমান বাবুল, বিসিবির টেকনিক্যাল কমিটির সদস্য ও সাবেক ক্রিকেটার এ এস এম ফারুক। অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে অংশ নিতে যাওয়া অনূর্ধ্ব-১৯ দলের সঙ্গে সময় কাটালেন মাশরাফি। চ্যাম্পিয়ন হওয়ার চাপ নিয়ে নয়, বরং দেশকে প্রতিনিধিত্ব করার গর্ব নিয়ে তরুণদের ভালো খেলতে পরামর্শ দিলেন জাতীয় দলের অধিনায়ক।

যুব বিশ্বকাপে স্বাগতিক বাংলাদেশ দল এবার স্বপ্ন দেখছে শিরোপার। এবার ঘরের মাটিতে বিশ্বকাপ, তাইতো ঘরেই বিশ্বকাপ রেখে দিতে আত্মবিশ্বাসী মেহেদি ‍হাসান মিরাজের দল। এ জন্য কঠোর পরিশ্রমও করছে তারা। বিসিবিও বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দলের সুযোগ-সুবিধার কোনো কমতি রাখছে না।

মাশরাফির কথায় দারুণ অনুপ্রাণিত হয়েছেন অনূর্ধ্ব-১৯ দলের ক্রিকেটাররা। যুব দলের সহ-অধিনায়ক নাজমুল হোসেন শান্ত মাশরাফির কথায় দারুণ অনুপ্রাণিত।

এ বিষয়ে তিনি বলেন, ‘জাতীয় দলের অধিনায়ক মাশরাফি ভাই আমাদের অনুপ্রাণিত করেছেন। তিনি চাপ না নিয়ে খেলা উপভোগ করতে বলেছেন। আমরা সবাই তার কথায় অনুপ্রাণিত হয়েছি। মাশরাফি ভাই নিজেও যুব বিশ্বকাপ খেলেছিলেন। সেই সব কথা আমাদের সঙ্গে শেয়ার করেছেন। এমন একটি বড় ইভেন্টে ভালো খেলার জন্য কী কী করা উচিত সেই সব তিনি আমাদের বলেছেন। তবে বারবার তিনি আমাদের খেলা উপভোগের কথা মনে করিয়ে দিয়েছেন।’

বাংলাদেশের তরুণ ক্রিকেটারদের উদ্দেশ্য করে মাশরাফি বলেন, ‘চাপ নিয়ে খেলতে নিষেধ করেছি আমি। চ্যাম্পিয়ন হতেই হবে, এটা মাথায় রাখতে না করেছি। দেশকে প্রতিনিধিত্ব করতে পারাটাই সবচেয়ে বড় কথা। মাঠে নামার সময় এই গর্বটা যেন থাকে। সেই গর্বে উদ্বুদ্ধ হয়ে পারফর্ম করলেই হবে। শিরোপা জয়ের ভাবনায় বিভোর হওয়ার প্রয়োজন নেই।’



« (পূর্বের সংবাদ)