মেইন ম্যেনু

যুব ওয়ানডেতে এবার মিরাজের বিশ্ব রেকর্ড

আগের ম্যাচেই যুব ওয়ানডে ক্রিকেট ইতিহাসে সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড গড়েন বাংলাদেশের নাজমুল হোসেন শান্ত। এবার বল হাতে যুব ওয়ানডেতে সবচেয়ে বেশি উইকেট শিকারের নতুন রেকর্ড গড়লেন বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক মেহেদী হাসান মিরাজ।

পাকিস্তানের ইমাদ ওয়াসিমকে পেছনে ফেলে শীর্ষে উঠেছেন মিরাজ। ৫৩ ম্যাচে মিরাজের উইকেট ৭৪টি। ২০০৫ থেকে ২০০৮ সাল পর্যন্ত পাকিস্তানের অনূর্ধ্ব-১৯ দলে খেলা ইমাদ ওয়াসিমের উইকেট ৭৩টি।

পাকিস্তানি স্পিনারকে ছাড়িয়ে যেতে মঙ্গলবার মিরাজের প্রয়োজন ছিল ২ উইকেটের। নামিবিয়ার বিপক্ষে ১২তম ওভারে বোলিংয়ে আসেন মিরাজ। প্রথম ওভারে ৭ রান খরচের পর দ্বিতীয় ওভারটি মেডেন নেন ডানহাতি এ অফস্পিনার। তৃতীয় ওভারের দ্বিতীয় বলে ভন লিনগেনকে এলবিডব্লিউর ফাঁদে ফেলেন অধিনায়ক।

দ্বিতীয় উইকেটের জন্য মিরাজকে অপেক্ষা করতে হয় তার অষ্টম ওভার পর্যন্ত। রেকর্ড হবে কি হবে না, তা নিয়েও ছিল যথেষ্ট সন্দেহ! কারণ বাংলাদেশের স্পিনারদের দাপটে মাথা উঁচু করে দাঁড়াতেই পারছিল না নামিবিয়া। বৃষ্টির মতো দ্রুত উইকেট পড়তে থাকে তাদের। নামিবিয়ার ইনিংসের শেষ উইকেটটি নিয়ে মিরাজ বিশ্ব রেকর্ড গড়েন। ভন উইককেও এলবিডব্লিউর ফাঁদে ফেলেন মিরাজ। তাতেই বাজিমাত।

এদিকে যুব ওয়ানডেতে সর্বাধিক উইকেট নেওয়ার তালিকায় শীর্ষ দশে রয়েছেন বাংলাদেশের আরো তিন স্পিনার। মাহমুদুল হাসান লিমন রয়েছেন চারে। তার উইকেট ৬৬টি। আটে সালেহ আহমেদ শাওন (৫৫) ও নয়ে সোহরাওয়ার্দী শুভ (৫৫) রয়েছেন।

এর আগে স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে ১১৩ রানের ইনিংস খেলে যুব ওয়ানডেতে সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড নিজের দখলে নিয়ে নেন বাংলাদেশের নাজমুল হোসেন শান্ত (৫৪ ম্যাচে ১৭৪৭)। শান্ত পেছনে ফেলেন পাকিস্তানেরই ওপেনার সামি আসলামকে (৪০ ম্যাচে ১৬৯৫)। হোক না যুব ওয়ানডে; ব্যাটিং-বোলিং দুই বিভাগেই শীর্ষে বাংলাদেশি ক্রিকেটার। ভাবতেই ভালো লাগে!

উল্লেখ্য, মেহেদী হাসান মিরাজ দেশের স্বনামধন্য ইলেকট্রিক্যাল, ইলেকট্রনিকস, অটোমোবাইলস ও হোম অ্যাপ্লায়েন্স প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান ওয়ালটনের ‘ইয়ুথ অ্যাম্বাসেডর’। গত সেপ্টেম্বরে তরুণ এই ক্রিকেটারকে দুই বছরের জন্য অ্যাম্বাসেডর করে ওয়ালটন গ্রুপ।