মেইন ম্যেনু

যেখানে বেড়েই চলেছে নারী-পুরুষের যৌনসঙ্গীর সংখ্যা

পুরো বিশ্বেই বিবাহবহির্ভূত সম্পর্কের মাত্রা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। যতই সময় পার হচ্ছে সম্পর্কগুলোর স্থায়িত্ব ততই হালকা হচ্ছে। একজন নারী বা পুরুষ একাধিক সম্পর্ক জড়াচ্ছেন।

সম্প্রতি ব্রিটেনে এই বিষয়ে একটি জরিপ চালানো হয়। জরিপে অংশগ্রহণকারী নারী-পুরুষের আদর্শ সংখ্যা ছিল দশ। কারণ জরিপে দেখা যায়, অধিকাংশ নারী-পুরুষের জীবদ্দশায় যৌনসঙ্গী ছিল দশ বা তার বেশি।

ব্রিটেনের বিবাহবহির্ভূত সম্পর্কের সবচেয়ে বড় ডেটিংসাইট ইলিসিটইনউন্টার ডটকমের একহাজারের বেশি ব্যবহাকারী অনলাইন জরিপে অংশ নেয়। জরিপে জিজ্ঞাসা করা হয়, নতুন সঙ্গীর কতজন প্রেমিক বা প্রেমিকা থাকা উচিত বলে তারা মনে করে।

৩৮ শতাংশ নারী এবং ৩৭ শতাংশ পুরুষ আট থেকে ১২ উত্তর দিয়েছেন। জরিপে অংশগ্রহণকারী নারী-পুরুষ উভয়ই স্বীকার করেছেন দশ হচ্ছে আদর্শ সংখ্যা।

যাদের দশের বেশি যৌনসঙ্গী ছিল তাদেরকে বাছবিচারহীন বলা হয়েছে। আর যাদের যৌনসঙ্গী দশের নিচে ছিল তাদের যৌন অনভিজ্ঞ বলা হয়েছে। তিন শতাংশ নারী এবং চার শতাংশ পুরুষের যৌনসঙ্গী ছিল ২০ এর ওপরে।

জরিপে অংশগ্রহণকারীদের জিজ্ঞাসা করা হয়েছিল, তারা নতুন সঙ্গীদের নির্বাচনের ক্ষেত্রে তাদের অতীত প্রেমিকের সংখ্যা জানতে চাইবে কিনা। ৩৫ শতাংশ নারী ও ৩০ শতাংশ পুরুষ তাদের সঙ্গীর পূর্ববর্তী যৌনসঙ্গীর সম্পর্কে জানতে চাইবে বলে মতামত দিয়েছে।

ইলিসিটইনউন্টার ডটকমের মুখপাত্র ক্রিস্টিয়ান বলেন, সম্পর্কগুলো দ্রুত পরিবর্তন হচ্ছে। আমার মনে হয় আমরা সবাই সহনশীল এবং যৌন সম্পর্কের ক্ষেত্রে দুঃসাহসিক হয়ে উঠছি।

এই জরিপটি যদি দশ বছর আগে চালানো হতো, তাহলে পুরুষরা হয়তো বেশি মানুষের সঙ্গে শয্যাসঙ্গী হওয়ার চেয়ে যোগ্য সঙ্গী প্রত্যাশা করতো।