মেইন ম্যেনু

যেভাবে পালালেন গুজমান…

মেক্সিকোর কুখ্যাত অপরাধী জাকুইন গুজমান শনিবার রাতে অভিনব কায়দায় জেল ভেঙে পালানোর পর বিপাকে পরেছে সে দেশের সরকার। তিনি নিজের কারাকক্ষে এক মাইল লম্বা দীর্ঘ সুরঙ্গ খুঁড়ে সেটি দিয়ে পালিয়েছেন বলে বিবিসি জানিয়েছে। তাকে ফের আটক করতে জোর তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছে নিরাপত্তা বাহিনী।

রোববার মেক্সিকোর জাতীয় নিরাপত্তা কমিশন জানিয়েছেন,মেক্সিকো সিটির কাছে সুরক্ষিত আল্টিপ্লানো কারগার থেকে এক মাইল লম্বা সুরঙ্গ দিয়ে পালান মাদক চোরাচালানি গুজমেন। এ ঘটনায় ১৮ কারারক্ষীকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে।

৩শনিবার রাতে তাকে সর্বশেষ নিজ কারাকক্ষে স্নান করতে দেখা যায়। এর কয়েক সেকেণ্ড পরেই চম্পট দেন ‘এল চাপো’ বা ‘শর্টি’ নামে পরিচিত ওই মাদক সম্রাট। রাতে তার সেলের মেঝেতে ৩২ ফুট গভীর এক গর্ত আর মই আবিষ্কারের পর গুজমানের পালানোর বিষয়টি বুঝতে পারেন কারা কর্মকর্তারা।

এ সম্পর্কে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে মেক্সিকোর জাতীয় নিরাপত্তা কমিশনার মন্তে আলেহান্দ্রো রুবিদো জানান, কারাগারের সেলের নিচ থেকে ওই গর্ত পৌঁছেছে দেড় কিলোমটিার দীর্ঘ এক সুড়ঙ্গে। সেখানে আলো-বাতাস চলাচলের ব্যবস্থা, এমনকি সিঁড়িও আছে। কারাগারের সীমানার বাইরে নির্মাণাধীন একটি এলাকায় গিয়ে শেষ হয়েছে ওই পথ। সুড়ঙ্গের মধ্যে একটি মোটরসাইকেলও পেয়েছে পুলিশ। তাদের ধারণা, সুড়ঙ্গ খোঁড়ার সরঞ্জাম এবং মাটি সরানোর কাজে ব্যবহার করা হয়েছিল দুই চাকার বাহনটি।

২এটি তার দ্বিতীয় দফা জেল পলায়ন। এর আগে ২০১১ সালে মেক্সিকোর এক সুরক্ষিত জেল থেকে সিনেমাটিক কায়দায় পালিয়েছিলেন গুজমান। তখন তিনি পালিয়েছিলেন কারাগারের এক লন্ড্রি ব্যাগে চড়ে।

কুখ্যাত মাদক চোরাচালান দল ‘সিনালোয়া কার্টল’য়ের প্রধান গুজমেনকে গতবছর দ্বিতীয়বারের মত গ্রেপ্তার করেছিল মেক্সিকো পুলিশ। এ ঘটনাকে মাদক চোরাচালানের বিরুদ্ধে বড় সফলতা হিসেবে প্রচার করেছিল মেক্সিকো সরকার।