মেইন ম্যেনু

যেভাবে বুঝবেন আপনার স্বামী পরকীয়ায় আসক্ত

১) লুকিয়ে লুকিয়ে ফোন করা- মানছি কিছু ফোনকলের জন্য প্রাইভেসি দরকার, কিন্তু ঘণ্টার পর ঘণ্টা অন্য ঘরে গিয়ে ফোন করা বা ফোন আসলেই সবার সামনে থেকে উঠে চলে যাওয়ার মতো ব্যাপারগুলো আপনার স্বামী যদি দিনের পর দিন চালিয়ে যান, তাহলে কিন্তু ব্যাপারটা বেশ সিরিয়াস৷

২) মেসেজ ডিলিট করা- ফোন থেকে কেউই চট করে মেসেজ ডিলিট করতে চান না, যতক্ষণ না ইনবক্স ভরে যায়৷ কিন্তু যদি দেখেন মাধেমঝ্যেই আপনার স্বামী মোবাইল ঘাঁটাঘাঁটি করছে, বা বলা ভালো মেসেজ বক্স ক্লিয়ার করছেন, তাহলে তার উপর অন্তত কিছুদিন হলেও সমানে নজর রাখুন৷

৩) কোনও অনুষ্ঠানে যেতে চাইছে না- আপনার স্বামী কি কয়েকদিন ধরেই কোনও না কোনও অজুহাতে পার্টি এড়িয়ে যাচ্ছেন? কিংবা বন্ধুদের সঙ্গে মেলামেশা কমিয়ে দিয়েছেন? তাহলে কিন্তু আপনি হাই রিস্ক জোনের মধ্য রয়েছেন৷কিংবা দিনের পর দিন রাত করে বাড়ি ফিরে সকালে উঠেই তাড়াতাড়ি বেরিয়ে যাচ্ছেন? তাহলে অনেকটাই নিশ্চিত হন যে তিনি অন্য কাউকে তাঁর মূল্যবান সময়ের অনেকটাই দিচ্ছেন৷

৪) হঠাৎ সময় কাটানো- হঠাৎই কি আপনার বর কোনও সহকর্মী বন্ধুর সঙ্গে কি বেশি ঘনিষ্ঠ হয়ে পড়েছেন বা অতিরিক্ত সময় কাটাচ্ছেন? উত্তরটা যদি হ্যাঁ হয় এবং তিনি যদি কোনও মহিলা হন, তাহলে আপনি রেড অ্যালার্ট পেয়ে গিয়েছেন৷ সরাসরি বরের সঙ্গে কথা এবার না বললেই নয়৷

৫)তরতাজা- রাতে বাড়ি ফেরার পর আপনার বরের সেই ক্লান্তিমাখা চেহারাটা উধাও৷ রাতেও বেশ ঝরঝরে আর তরতাজা লাগে তাকে? তাহলে কিন্তু অন্য গল্প রয়েছে, নিশ্চিত৷আর সেইসঙ্গে যদি তাঁর শার্ট বা রুমাল থেকে অন্য পারফিউমের গন্ধ বের হয়, তাহলে তো সন্দেহের আর কোনও অবকাশই থাকে না৷

৬) অকারণ- বিনা কোনও কারণে যদি আপনাদের দুজনের মধ্যে হঠাৎ দূরত্ব বেড়ে যায়, কিংবা শারীরিক সম্পর্ক তলানিতে এসে ঠেকে, বা কথায় কথায় আপনার স্বামী অশান্তি করছেন, তাহলে আর বোঝার কিছু বাকি নেই৷ প্রায় ৯৯ শতাংশ নিশ্চিত তাঁর জীবনে অন্য কেউ এসেছে৷

৭) বলতে চাইছে না- একসময় কি সারাদিন উনি বাইরে কী কী করতেন বাড়ি ফিরে আপনাকে গল্প করতেন, কিন্তু ইদানী কমিয়ে দিয়েছেন? তাহলে বিষয়টা নিয়ে ভাবতে হচ্ছে৷ আপনিই না হয় উদ্যোগী হয়ে জিজ্ঞেস করুন উনি সারাদিন কী কী করলেন? যদি দেখেন কোনও না কোনও ছুতোয় এড়িয়ে যাচ্ছেন, তাহলে সময় থাকতে থাকতেই সতর্ক হন৷