মেইন ম্যেনু

যেমন স্যুটে আপনাকে দেখাবে ফিট

পোশাকে আভিজাত্য আনতে স্যুটের বিকল্প নেই। আমাদের দেশে শীতের সময় স্যুটের ব্যবহার বেড়ে যায় উল্লেখযোগ্যহারে। যেকোনো পার্টিতেও স্যুট পরা এক ধরনের ফ্যাশন ট্রেন্ড হয়ে দাঁড়িয়েছে। তবে স্যুটের ক্ষেত্রে কিছু বিষয় রয়েছে যা অনুসরণ না করলে পুরো ইমেজটি নষ্ট হয়ে যায়। সচেতন না হলে আপনি হয়ে যেতে পারেন একজন ‘ফ্যাশন ডিজাস্টার’। তাই ফিট আপনাকে উপস্থাপন করতে দরকার উপযুক্ত স্যুট। আর উপযুক্ত স্যুট তৈরির ক্ষেত্রে অবশ্যই কিছু ব্যাপারে লক্ষ্য রাখতে হবে।

মাপ দিয়ে বানাতে হবে

রেডিমেড স্যুট না কিনে নিজের মাপে স্যুট বানিয়ে নিতে পারেন। একেবারে নিজের মাপে স্যুট হবে। কাঁধের মাপ, হাতের মাপ, বুকের মাপ, সঠিক আকারের লম্বা ইত্যাদির প্রতি লক্ষ্য রাখবেন। একটু বেশি লম্বা অথবা একটু বেশি খাটো হলেই আপনার স্যুটটি নষ্ট হয়ে যেতে পারে। রেডিমেড স্যুট আপনার গায়ে যতোই ফিট থাকুক না কেন পুরোপুরিভাবে তা মানানসই হবে না। তাই রেডিমেড স্যুটের চিন্তা মাথা থেকে ঝেড়ে ফেলে ভালো কাপড়ের স্যুট বানিয়ে নিন।

স্যুটের প্যান্ট

সাধারণ ফর্মাল প্যান্টের মতো স্যুটের প্যান্টে প্লেট থাকে না। স্যুটের প্যান্ট প্লেট ছাড়া হয়। সাধারণ ফর্মাল প্যান্টের মতো ভাঁজের (প্লেটের) পরিবর্তে সোজা ছাঁট দিতে ভুলবেন না। এই বিষয়টি অবশ্যই মাথায় রাখতে হবে।

দুই বোতামের স্যুট

স্যুটের জন্য সবচাইতে উপযোগী হচ্ছে দুটি বোতাম। আপনার শারীরিক গড়ন যে ধরণেরই হোক না কেন লম্বা বা খাটো দুই বোতামের স্যুট মানিয়ে যাবে। এটি বর্তমানের ষ্ট্যাণ্ডার্ড স্টাইলও বটে। তাই স্যুট তৈরির ক্ষেত্রে দর্জিকে মনে করিয়ে দিন আপনার পছন্দের বিষয়টি।

উপযুক্ত রঙ নির্বাচন

স্যুটের ক্ষেত্রে কিছু নির্দিষ্ট রঙ রয়েছে, তার ভেতর থেকে মানানসই রঙ বেঁছে নিন। অ্যাশ, কালো, গ্রে, সাদা, গাঢ় পিত ইত্যাদি রঙের বিভিন্ন শেডেই স্যুটের কাপড় মানানসই হবে। লক্ষ্য রাখবেন স্যুটের কাপড়ের রঙ যেন বেশি ঝলমলে না হয় এবং আপনার গায়ের রঙের সঙ্গে মানানসই হয়। পার্টি এবং প্রফেশনের ক্ষেত্রে আলাদা ধরণের রঙ ব্যবহার করতে পারেন।

স্যুটের হাতের সঠিক মাপ

একটি সঠিক মাপের স্যুটের হাতা আপনার হাতের অনুযায়ী তৈরি হবে। হাতা কখনোই কবজির নিচ পর্যন্ত যাবে না। স্যুটের হাতের সঠিক মাপ হলো আপনার শার্টের হাতের মাপের চাইতে একটু খাটো যা সাধারনত কবজির ওপরেই থাকে। এই ব্যাপারে অবশ্যই লক্ষ্য রাখুন।