মেইন ম্যেনু

যেসব দুর্ঘটনা বিশ্বের সবচেয়ে ব্যয়বহুল

প্রত্যেক মানুষেরই জীবদ্দশায় ছোট বড় এক বা একাধিক দুর্ঘটনা ঘটে থাকে। কিছু মানুষ দুর্ঘটনায় প্রাণ হারায়, কিছু মানুষ বিকলাঙ্গ হয়, কিছু মানুষ কোনো বড় দুর্ঘটনার সাক্ষী হয় আবার কিছু দুর্ঘটনাই ইতিহাস হয়ে যায়। পৃথিবীতে এমন কিছু ঐতিহাসিক দুর্ঘটনা ঘটেছে যাতে এত বড় পরিমান ক্ষতি সাধন হয়েছে যে এতো বছর পরেও মানুষ তার চর্চা করে। এসব দুর্ঘটনার ফলে মিলিয়ন মিলিয়ন ডলারের উপর পর্যন্ত ক্ষতি হয়েছে।

আজ আমরা জানবো বিশ্বজুড়ে ঘটছে এমন কিছু গুরুত্বপূর্ণ দুর্ঘটনা যা মানব-জাতির কাছে পরিচিত সবচেয়ে ব্যয়বহুল দুর্ঘটনা। চলুন জেনে নেই সে সম্পর্কে:

টাইটানিক:
টাইটানিক, বিশ্বের সবচেয়ে বিখ্যাত ও ব্যায়বহুল দুর্ঘটনা হিসাবে পরিচিত । ১৯৯২ সালের ১৪ এপ্রিল রাত থেকে ১৫ এপ্রিল সকাল পর্যন্ত উত্তর আটলান্টিক মহাসাগরে এই দুর্ঘটনা ঘটেছে। এতে ১৫০০ এর বেশি মানুষকে প্রাণ হারাতে হয়েছিলো। জাহাজটি তৈরি করতে ৭ মিলিয়ন ডলার খরচ হয়েছিলো। যা আজকের টাকায় ১৫ মিলিয়ন ডলার।

সেতু বনাম ট্যাঙ্কার ট্রাক:
২০০৪ সালের ২৬ আগস্ট, জার্মানিতে একটি গাড়ী এবং একটি ট্যাঙ্কার ট্রাক এর সঙ্গে সঙ্ঘর্ষ হয়। ট্যাঙ্কার ট্রাকটি ৩২০০০ লিটার জালানি তেল বহন করছিল। ট্যাঙ্কারটি ওয়িহিলটাল (Wiehltal) সেতুর উপর ক্র্যাশ করে এবং ৯০ ফুট নিচে পড়ে যায়। প্রকাণ্ড বিস্ফোরণ হয় এবং অগ্নি ঊৎপন্ন হয় যা সেতু এর লোড ধারন ক্ষমতা নষ্ট করে দেয়। সাময়িক মেরামতে ৪০ মিলিয়ন ডলার লাগে এবং সেতু প্রতিস্থাপন খরচ ৩১৮ মিলিয়ন ডলার খরচ করা হয় যেটি ইতিহাসের আরেকটি বড় ও ব্যায়বহুল দুর্ঘটনা।

মেট্রো লিংক ক্র্যাশ:
১২ সেপ্টেম্বর ২০০৮, ক্যালিফোর্নিয়া ইতিহাসে সবচেয়ে ভয়াবহ ট্রেন বিপর্যয় ঘটেছে। একটি যাত্রীবহনকারী মেট্রো লিংক লস এঞ্জেলেস এর বাইরে একটি ইউনিয়ন প্যাসিফিক মালবাহী ট্রেনের সঙ্গে সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই ২৪ জন নিহত হয়। এতে ওই রেল কোম্পানীর নামে মামালা করা হয়। ফলে কোম্পানীকে ৫০০ মিলিয়ন ডলার খরচ করতে হয়।-সূত্র: লোলওয়াট।