মেইন ম্যেনু

যে অভ্যাসে ধনী হয়েছে তারা, এবার হতে পারেন আপনিও

আজ যারা ধনী গতকাল তারা অনেকেই এমন ছিলেন না। অনেকেই মধ্যবিত্ত কিংবা নিন্ম-মধ্যবিত্ত পরিবার থেকে উঠে এসেছেন ধনীদের কাতারে। কেউ কেউ অসম্ভ রকমের ধনাঢ্য ব্যক্তিতে পরিণীত হয়েছে। আর এটা হয়েছে নিজ প্রচেষ্টায়, নির্দিষ্ট কিছু অভ্যাসকে কাজে লাগিয়ে।

অনেকের পরিবর্তন দেখে কেউ কেউ চোখ কপালে তোলেন। ভাবেন, কিভাবে সম্ভব এতো তাড়াতাড়ি ধনী হওয়া! আজকের ধনীদের নিয়ে এমন কৌতূহল এ সমাজে অনেক আগের থেকে। আর সে কৌতূহল নিয়েই দীর্ঘ পাঁচ বছর গবেষণা চালিয়েছেন থমাস সি. কর্লি। আর সেই গবেষণায় উঠে এসেছে সেই অভ্যাসের কারণগুলো। যা কাজে লাগিয়ে আপনিও আপনার অবস্থান পরিবর্তন করতে পারবেন।

এ প্রসঙ্গে গবেষক কার্লি জানিয়েছেন, ‘আমি দেখেছি দৈনন্দিন অভ্যাস মানুষের জীবনকে সফল কিংবা অসফল করে।’ ‘চেঞ্জ ইওর হ্যাবিটস, চেঞ্জ ইওর লাইফ’ শিরোনামে এই গবেষক একটি বইও লিখেছেন। যদিও এখনও এটি প্রকাশ হয়নি। তবে তিনি জানিয়েছেন খুব শিগগিরই এই বইটি প্রকাশ পাবে।

কার্লি তার গবেষণায় বলছেন, নিরিবিলি সময়ে চিন্তা করা একটি অন্যতম মাধ্যম। তিনি জানিয়েছেন, এই অভ্যাসটি বহু ধনীদের মাঝে খুবই সাধারণভাবে দেখা যায়। কর্লি জানিয়েছেন, ‘ধনীদের অনেকেই প্রতিদিন ১৫ থেকে ৩০ মিনিট সময় কাটান শুধু চিন্তা করে। চিন্তাভাবনা সাফল্যের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।’

কার্লি বলেন, ‘ধনীরা সকালে একা থাকেন। এ সময় প্রতিদিন কমপক্ষে ১৫ মিনিট তারা চিন্তাভাবনা করেন। এছাড়া তারা প্রতিদিন একটি নির্দিষ্ট সময় নিজেদের জন্য তুলে রাখেন। এ সময় তারা বহু বিষয় তাদের মস্তিষ্কে ঝড় বইয়ে দেন।’

ধনীরা চিন্তা করার সময় বেশ কিছু প্রশ্ন নিজেকে করে থাকেন। তা হেলো, ‘আমি আরও অর্থ কিভাবে উপার্জন করতে পারি? আমার কাজ কি আমাকে সুখী করছে? আমি কি যথাযথভাবে শারীরিক অনুশীলন করছি? অন্য কোন জনহিতকর কাজে আমি যুক্ত হতে পারি? আমার কি ভালো বন্ধু রয়েছে? কোন ব্যবসায় আমার আরও বেশি সময় দেওয়া উচিত এবং কোন ব্যবসা থেকে বের হয়ে আসা উচিত?’

গবেষণায় কার্লি ১০টি বিষয় চিহ্নিত করেছেন। যে ১০টি বিষয় নিয়ে ধনীরা চিন্তা করে থাকেন। আর তা হলো:

১। ক্যারিয়ার
২। অর্থসংস্থান
৩। পরিবার
৪। বন্ধু-বান্ধব
৫। ব্যবসা সম্পর্ক
৬। স্বাস্থ্য
৭। স্বপ্ন নির্ধারণ ও লক্ষ্য নির্ধারণ
৮। সমস্যা
৯। জনহিতকর কাজ
১০। সুখ-স্বাচ্ছন্দ্য।