মেইন ম্যেনু

যে কারনে সবাই পাবে না হোয়াটসঅ্যাপ

নকিয়া, ব্ল্যাকবেরি ও অ্যান্ড্রয়েডের পুরোনো কিছু সংস্করণে আগামী বছর থেকে চলবে না মেসেজিং অ্যাপ্লিকেশন হোয়াটসঅ্যাপ। এই সেবাটি চালাতে হলে অ্যান্ড্রয়েড, আইওএস ও উইন্ডোজের হালনাগাদ সংস্করণযুক্ত স্মার্টফোন ব্যবহার করতে হবে। সম্প্রতি সপ্তম বর্ষপূর্তি উপলক্ষে ১০০ কোটি ব্যবহারকারীর মাইলফলক ছোঁয়ার কথা জানায় হোয়াটসঅ্যাপ কর্তৃপক্ষ। ফেসবুকের প্রধান নির্বাহী মার্ক জাকারবার্গ হোয়াটসঅ্যাপের ১০০ কোটি ব্যবহারকারীর ঘোষণা দিয়ে বলেন, প্রতিদিন এ সেবাটি থেকে চার হাজার ২০০ কোটি বার্তা আদান-প্রদান করা হয়।

২০১৪ সালে এক হাজার ৯০০ কোটি মার্কিন ডলার ব্যয়ে হোয়াটসঅ্যাপকে কিনে নেয় ফেসবুক। যুক্তরাষ্ট্রের সিলিকন ভ্যালির ইতিহাসে এটিই ছিল সবচেয়ে বড় অধিগ্রহণের চুক্তি। ২০০৯ সালে বার্তা আদানপ্রদানের অ্যাপ হিসেবে যাত্রা শুরু করে হোয়াটসঅ্যাপ। এখন প্রতিটি মোবাইল প্ল্যাটফর্মে রয়েছে এই অ্যাপটি। স্কাইপ ও ভাইবারের সঙ্গে প্রতিযোগিতা করতে বিভিন্ন ফিচারও এনেছে হোয়াটসঅ্যাপ। তবে ২৬ ফেব্রুয়ারি হোয়াটসঅ্যাপ কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, ব্ল্যাকবেরি ও নকিয়ার মতো প্রতিষ্ঠানের তৈরি অপারেটিং সিস্টেমে হোয়াটসঅ্যাপের সেবা সরিয়ে ফেলা হবে। ব্ল্যাকবেরির সর্বশেষ অপারেটিং সিস্টেম ব্ল্যাকেবরি ১০ অপারেটিং সিস্টেমেও হোয়াটসঅ্যাপ থাকবে না।

নকিয়ার সিমবিয়ান অপারেটিং সিস্টেমের এস ৪০, এস ৬০ স্মার্টফোনেও চলবে না হোয়াটসঅ্যাপ। অ্যান্ড্রয়েড ২.২ বা তার আগের সংস্করণ ও উইন্ডোজ ৭.১ অপারেটিং সিস্টেমেও হোয়াটসঅ্যাপ চালানো যাবে না। হোয়াটসঅ্যাপ কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, তাদের সেবা পেতে হলে অ্যান্ড্রয়েড আইওএস বা উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেমের হালানাগাদ সংস্করণ ব্যবহার করা লাগবে।