মেইন ম্যেনু

যে খাবার খেলে আপনার বিপদ হতে পারে

অফিস থেকে ফিরেই অনুপমবাবু তড়িঘড়ি বসে পড়লেন টিভির সামনে। বউ বাপের বাড়ি। ফলে কিচেনে গিয়ে ডিনার বানানোর ঝক্কি পোহাতে নারাজ অনুপম বাবু। ফ্রিজে চিকেন মাশরুম আর ফ্রায়েড রাইস তো ছিলই। আভেনে খাবার গরম করে সরাসরি ফুটবল ম্যাচে ডুবে গেলেন তিনি। অনুপমবাবুর মতো অনেকেই আছেন যাঁদের কাছে এটি নিত্যদিনের অভ্যাস। কিন্তু, জানেন কি, এভাবে খাবার গরম করে খেলে হিতে বিপরীত হতে পারে।

এমন অনেক খাবার আছে যা রি-হিট করলে নষ্ট হয় তার খাদ্যগুণ। দেখে নেওয়া যাক, সেগুলি কী কী।

১) চিকেন চিকেনের প্রিপারেশন রি-হিট করা উচিত নয়। কারণ, রেড মিটের তুলনায় এতে হায়ার ডেনসিটি প্রোটিন রয়েছে। গরম করার সময় প্রোটিনের উপাদান ‘ভেঙে’ যায়। ফলে তাতে পেটের সমস্যা হওয়ার আশঙ্কা থাকে। ২) ভাত ভাত একেবারেই রি-হিট করে খাওয়া উচিত নয়। ফুড স্ট্যান্ডার্ড এজেন্সি’র রিপোর্ট অনুযায়ী, ভাত কীভাবে সংরক্ষণ করা হচ্ছে তা জরুরি। রুম টেম্পারেচারে ভাত অনেকক্ষণ রেখে দিলে তা থেকে পেটের রোগ হওয়ার আশঙ্কা থাকে। ফের গরম করলেও তা এড়ানো যায় না।

৩) আলু রান্নার পর ফ্রিজে না রাখলে আলুর মধ্যে এক ধরনের ব্যাকটেরিয়া (ক্লসট্রিডিয়াম বটুলিনাম) জন্মায়। অনেক সময় আলুর তরকারি রান্না করে তা ঢাকনা দেওয়া পাত্রে রাখলেও এই ব্যাকটেরিয়া জন্মায়। আলুর তরকারি ফের গরম করলেও তা নষ্ট হয় না। ফলে ঠান্ডা হওয়ার পরই আলুর তরকারি ফ্রিজে রাখুন। রি-হিট করবেন না।

৪) মাশরুম ইউরোপিয়ান ফুড ইনফরমেশন কাউন্সিল-এর গবেষকরা জানান, এনজাইম ও মাইক্রোঅর্গানিজমস মাশরুমের মধ্যে প্রোটিনের উপাদান নষ্ট করে দেয়। সঠিকভাবে রাখা না হলে বা রি-হিট করলে মাশরুম নষ্ট হয়ে যায়। এমনকী, এতে পেট খারাপও হতে পারে। তবে ২৪ ঘণ্টা ফ্রিজে রাখার পর ৭০ ডিগ্রি সেলসিয়াসে মাশরুম গরম করা যেতে পারে বলে জানিয়েছেন গবেষকরা।