মেইন ম্যেনু

যে দেশের পথেঘাটে নেই একটিও কুকুর, কেন জানেন?

বিশ্বের একটা দেশের নাম করুন তো যেখানে আপনি হাজার খুঁজেও পথকুকুর দেখাতে পারবেন না? হ্যাঁ, বাজি রেখে বলা যায়, একটাও পাবেন না। দেশটির নাম নেদারল্যান্ডস। বিশ্বের এক ও একমাত্র দেশ, যেখানে রাস্তার কুকুর বলে কিছু নেই। এর অর্থ কী বুঝলেন?

ডাচেরাও কি কেরলের মতো কুকুর-বিদ্বেষী? মাঝে কেরল সরকার পর্যটকদের দোহাই দিয়ে ফুটপাথ থেকে কুকুর সাফা করে দিয়েছিল। শ’য়ে শ’য়ে পথকুকুর নিকেশ করা হয়। নেদারল্যান্ডও

কি সে পথেই এগিয়েছে?
আজ্ঞে না। বরং, উল্টোটাই। ছোট্ট দেশটিতে পশুপ্রেমীর অভাব নেই। কেয়ার অফ ফুটপাথ নয়, সব পথকুকুরই ঠিকানা পেয়েছে। কারও না কারও বাড়িতে আশ্রয় জুটেছে।

এর পিছনে অবশ্য ডাচ সরকারেরও একটা ভূমিকা রয়েছে। নেদারল্যান্ডে পশুনির্যাতন বিরোধী কঠোর আইন রয়েছে। কোনও পশুকেই উত্ত্যক্ত করা যাবে না। নিউ ইয়র্ক পোস্টের রিপোর্ট অনুযায়ী, লোক যাতে পথকুকুর পোষে, তার জন্য সরকারি প্রচার রয়েছে। কুকুরের ভ্যাকসিন তাঁদের জন্য ফ্রি। এমনকী কুকুরের নির্বীর্যকরণও নিখরচে। উলটো দিকে, কেউ পিওর ব্রিডের কুকুর পুষতে চাইলে গুনতে হবে উচ্চ কর।

যদিও, ডাচ নাগরিকদের দাবি, ট্যাক্সের ভয়ে নয়, সরকারি জোরাজুরিও নয়। শুধুমাত্র ভালোবেসেই তাঁরা রাস্তার কুকুরকে বাড়িতে তুলে নিয়ে যান। সরকারি সিস্টেমেই পশু হাসপাতালে নিয়ে যেতে হয় পথকুকুরকে। প্রতিটি কুকুরের শরীরে ঢুকিয়ে দেওয়া হয় মাইক্রোচিফ।-এই সময়