মেইন ম্যেনু

যে মোবাইলে সম্পর্ক, সেই মোবাইলেই বান্ধবীর ধর্ষণের ভিডিও

মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখান উপজেলার ইছাপুরা গ্রামে কিশোরী ‘বান্ধবী’কে ধর্ষণের পর ভিডিও ধারণ করেছে এক যুবক।

পরে ওই ভিডিও মোবাইলের মাধ্যমে এলাকায় ছড়িয়ে দিয়েছে।

এদিকে স্কুলপড়ুয়া মেয়েকে ধর্ষণের ভিডিও ধারণের খবরে এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে। স্কুলছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে বৃহস্পতিবার মামলা করেন।

এলাকাবাসীর দাবির মুখে শুক্রবার দুজনকে গ্রেফতার করেছে সিরাজদিখান থানা পুলিশ। গ্রেফতারকৃতরা হলো- নয়ন (১৮) ও ইকবাল হোসেন (৩৫)।

শিয়ালদি গ্রামের ওই কিশোরী ষষ্ঠ শ্রেণির এক ছাত্রী। বৃহস্পতিবার রাতে মামলা দায়েরের পর শুক্রবার তাকে শারীরিক পরীক্ষার জন্য মুন্সীগঞ্জ আধুনিক জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

জানা গেছে, তিন মাস আগে মোবাইলফোনের মাধ্যমে একই উপজেলার পশ্চিম ইছাপুরা গ্রামের আজিজ মোল্লার ছেলে নয়নের সঙ্গে ওই স্কুলছাত্রীর পরিচয় হয়। গত বুধবার দুপুরে ওই ছাত্রীকে নয়ন ইছাপুরা গ্রামে নিয়ে যায়।

পরে ওই গ্রামের খোরশেদুজ্জামানের বাগানে নিয়ে নয়ন ওই ছাত্রীকে ধর্ষণ করে। নয়নকে সহায়তা করে ইছাপুরা গ্রামের ইকবাল হোসেন মনির (২০) ও পশ্চিম ইছাপুরা গ্রামের আলমগীর (৩৩)।

ধর্ষণের সময় আলমগীর ওই ছাত্রীর মোবাইল ছিনিয়ে নিয়ে ধর্ষণের ভিডিও মোবাইলে ধারণ করে। ধর্ষণের ঘটনা কাউকে জানালে তা সবার মোবাইলে ও ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেয়ার হুমকি দেয় তারা।

সিরাজদিখান থানার পরিদর্শক (তদন্ত) ইয়ারদৌস হাসান জানান, নারী ও শিশু নির্যাতন দমন এবং পর্নোগ্রাফি আইনে মামলার পর দুজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। জড়িত অন্যদেরও গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।