মেইন ম্যেনু

যে লক্ষণগুলো দেখে বোঝা যায় আপনি পর্যাপ্ত প্রোটিন পাচ্ছেন না

আপনার শরীরের পেশীর গঠনের জন্য প্রোটিন প্রয়োজন এবং আপনার ক্ষয়ে যাওয়া শক্তি পুনরুদ্ধারেও সাহায্য করে প্রোটিন। যদি আপনি খাদ্যের মাধ্যমে পর্যাপ্ত প্রোটিন গ্রহণ না করেন তাহলে আপনার বিভিন্ন রকমের পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া দেখা দিতে পারে। প্রোটিনের ঘাটতির লক্ষণগুলোর বিষয়ে জেনে নিই চলুন।

১। ক্ষুধা

অবিরত ক্ষুধা অনুভব করা এবং স্ন্যাক্স খাওয়ার প্রবণতা বৃদ্ধি পেলে বুঝতে হবে যে আপনি খাবারে কার্বোহাইড্রেট বেশি এবং প্রোটিন কম পরিমাণে গ্রহণ করছেন।

২। আঘাত প্রাপ্ত স্থান ভালো হতে দেরি হলে

ত্বকের কোষের নিরাময়ের জন্য এবং নতুন কোষ পুনঃনির্মাণের জন্য প্রচুর প্রোটিন প্রয়োজন। যদি আপনার শরীরের কোথাও কেটে যায় এবং এটি ভালো হতে অনেক সময় লাগে তাহলে তা এটাই নির্দেশ করে যে আপনি সম্ভবত পর্যাপ্ত প্রোটিন গ্রহণ করছেন না।

৩। চামড়া উঠা

প্রোটিনের ঘাটতির একটি দৃশ্যমান লক্ষণ হচ্ছে ত্বকের চামড়া উঠা। উরুর পেছনের অংশে এবং নিতম্বে আঁশের ন্যায় চামড়া উঠতে দেখা যায়। এ ধরণের ত্বকে অ্যালার্জি হওয়ার প্রবণতা দেখা যায়। এছাড়াও নখ ভেঙ্গে যায় খুব সহজেই এবং নখে খাঁজের সৃষ্টি হয় প্রোটিনের ঘাটতি হলে।

৪। চুল পাতলা হয়ে যাওয়া

প্রোটিন শুধুমাত্র পেশীর গঠন ও বৃদ্ধির জন্যই প্রয়োজনীয় নয়। ত্বক, চুল ও নখের কোষের প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করতেও সাহায্য করে প্রোটিন। শক্তি সংরক্ষণ এবং সংরক্ষিত প্রোটিন ধরে রাখার জন্য আপনার শরীর একটি বিশ্রাম দশার মধ্য দিয়ে যাবে, যার ফলে আপনার চুলের বৃদ্ধি হবেনা এবং আপনার চুল পড়ার বা পাতলা হয়ে যাওয়ার সমস্যা দেখা যাবে।

৫। পেশী ও জয়েন্টে ব্যথা

পেশীর দুর্বলতা এবং জয়েন্টের ব্যথাও হতে পারে প্রোটিনের ঘাটতির লক্ষণ। তাই আপনি যদি প্রসেসড ফুড খাওয়ায় অভ্যস্ত হন তাহলে এর পরিবর্তে মাছ, মুরগী, ডিম ও দুগ্ধজাতীয় খাবার খাওয়ায় অভ্যাস তৈরি করুন।

৬। এডিমা

আপনি যদি পর্যাপ্ত প্রোটিন গ্রহণ না করেন তাহলে আপনার দেহের নিম্নাংশে অর্থাৎ পা, গোড়ালি ও পায়ের পাতা ফুলে যেতে পারে। কারণ প্রোটিন দেহের তরলকে টিস্যুর মধ্যে জড়ো হতে বাঁধা দিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। এডিমা বা তরল জমা হওয়ার লক্ষণও প্রোটিনের ঘাটতি নির্দেশ করে।

৭। দুর্বল ইমিউনিটি

ঘন ঘন অসুস্থ হয়ে পরা দুর্বল ইমিউনিটির লক্ষণ। ইমিউন কোষগুলো প্রোটিন দ্বারা তৈরি। তাই প্রোটিনের ঘাটতি হলে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যায়।