মেইন ম্যেনু

যে সেতু থেকে মেঘ ছোঁয়া যায়

ব্রিজরোডে জমেছে কুয়াশা। ঘন কুয়াশার ভেতর থেকে জেগে ওঠা ব্রিজরোডকে মনে হচ্ছে যেনো মেঘের দেশে পাড়ি দেওয়ার পথ।

সূর্য ডুবে যাওয়া পর থেকে কুয়াশা ভিড় জমায় এ পথে।

ব্রিজের সঙ্গে সংযুক্ত বাতি ও গাড়ির লাল, নীল, সবুজ বাতি যখন পড়ে তখন মনে হয় রাস্তাটি বুঝি একেবেঁকে অ‍াকাশ ভেদ করে সৌরজগতের অংশ হয়ে গেছে!

এই সেতুটি স্লোভেনিয়াকে উপকূলীয় এল‍াকা ও আড্রিয়াটিক সাগরের সঙ্গে সংযুক্ত। তাপমাত্রা বিপর্যয়ের কারণে কিছুদিন ধরে সেতুটি ডুবে রয়েছে কুয়াশার ঢেউয়ে। যেখানে শীতল বাতাসের ওপর শুয়ে উষ্ণ হাওয়া!

দীর্ঘ সেতুটির নাম কার্নি ক্যাল। উপত্যকার তিনশো ২৮ ফুট উঁচুতে অবস্থিত এ সেতু সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে নয়শো ৮৪ ফুট ওপরে।
দিনের বেলা এখানে কুয়াশার মাত্রা রাতের চেয়ে অনেক বেশি থাকে।

ঘন কুয়াশাচ্ছন্ন থাকে বলে এখানে গাড়ি চালানো যদিও ঝুঁকিপূর্ণ, কিন্তু এ পর্যন্ত কোনো দুর্ঘটনা ঘটেনি।