মেইন ম্যেনু

যে ৫ উপায়ে আপনি আপনার সঙ্গীনীর মন জয় করতে পারবেন

মেয়েদের মন বোঝা বড়ই কঠিন। পুরুষ সমাজে এটাই অতি প্রচলিত ধারণা। আর এখানেই যত সমস্যা, মনকষাকষি। এর জেরে সম্পর্কেও ভাঙন ধরে।
দিনরাত এক করে ঘর ও বাইরেটা সমানভাবে সামাল দেন মহিলারা। কাছের মানুষটির থেকে তাঁর যে বিস্তর চাহিদা থাকে, এমনটা নয়। জীবনসঙ্গী শুধু কয়েকটি ব্যাপার মেনে চললেই কেল্লা ফতে। বেটার হাফ খুশ, সম্পর্কও মসৃণ। যে সহজ পাঁচ উপায়ে একজন পুরুষ তাঁর সঙ্গিনীর মন জয় করতে পারেন, সেদিকে একবার নজর রাখা যাক। এই সময়ের প্রতিবেদন-

১. সত্‍‌ ও বিশ্বাসী
নারীর মন জয় করার ক্ষেত্রে সততার কোনও বিকল্প নেই। আপনার চরমতম ভুলও যদি মনের মানুষটির সামনে এসে স্বীকার করে নিতে পারেন, তাও মাফও হয়ে যাবে। কিন্তু, একবার মিথ্যে ধরা পড়ে গেলে সর্বনাশ। বিশ্বাসভঙ্গ নারীদের একেবারেই নাপসন্দ। তাই যাই ঘটুক, সঙ্গিনীর সামনে মিথ্যের আশ্রয় নেবেন না। যে কোনও সম্পর্কের ক্ষেত্রেই সততা ও বিশ্বাসটা অত্যন্ত জরুরি।

২. ভালো শ্রোতা হন
ভালো সম্পর্ক গড়তে চাইলে, আগে ভালো শ্রোতা হওয়া অভ্যেস করুন। আপনার বেটার হাফ যেটা আপনাকে বলছেন, সেটা মন দিয়ে শুনুন। সমস্যাগুলি বোঝার চেষ্টা করুন। সবসময় মনে রাখবেন, আপনার কাছের মানুষটি আপনার থেকে সবসময় উত্তর আশা করে না। বরং সে চায়, কেউ একজন থাকুক, যে তাঁর কথাগুলো কোনও বিরক্তি না রেখে শুনবে।

৩. বড় হতে হবে
নিশ্চয়ই ভাবছেন, বড় আবার কী হব? না, এটা সেই বড় হওয়া নয়। বয়সের তুলনায় মহিলারা সাধারণত মানসিকভাবে পুরুষদের থেকে বেশি পরিণত হন। কাজেই সম্পর্কে উষ্ণতা বজায় রাখতে হলে, আপনার বেটার হাফের মানসিকতা বুঝে নিয়ে তার সমপর্যায়ের মানসিকতাসম্পন্ন হয়ে উঠুন।

৪. সঙ্গ দিন
অনেকেই কেরিয়ার নিয়ে ব্যস্ততার জেরে নিজের জীবনসঙ্গিনীর কথাটাই ভুলে যান। তবে অর্ধাঙ্গিনীকে বাদ দিয়ে উন্নতির শিখরে ওঠা কখনওই সম্ভব নয়। তাই যতটা পারুন তাঁকে সঙ্গ দিন। ব্যস্ততার মধ্যেও কিছুটা সময় বের করে নিন সঙ্গিনীর জন্য।

৫. কোনও তর্ক নয়
মহিলারা অনেকসময় নিজের মতের বিরুদ্ধে কোনও কথা সহজে মেনে নিতে পারেন না। আর তার থেকে ঝগড়া বাধে, সম্পর্কে চিড় ধরে। আপনার সঙ্গিনী যে কথাটি বলছেন, তা আপনার মতবিরুদ্ধ হলেও, প্রথমেই তা খারিজ করে দেবেন না। তর্কের পথে যাবেন না। পরে শান্ত মাথায় যুক্তি গিয়ে আপনার বক্তব্য বোঝানোর চেষ্টা করুন। আর দেখুন, তা ম্যাজিকের মতো কাজ করছে।