মেইন ম্যেনু

যে ৫ টি খাবার দাঁতে দাগ সৃষ্টি করে

যখন কোন মানুষের দাঁত হলুদ হয়ে যায় তখন তাকে বয়স্ক দেখায়। যদিও জেনেটিক্স বয়স বৃদ্ধির ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে তারপর ও খাদ্যাভ্যাস ও বয়স্ক দেখানোর ক্ষেত্রে প্রচুর ভূমিকা রাখে। চলুন তাহলে এমন কিছু খাবারের কথাই আজ জেনে নিই যা দাঁতে দাগ সৃষ্টির জন্য দায়ী।

১। শুকনো ফল

শুকনো ফল প্রচুর পুষ্টি সম্পন্ন হলেও তাদের একটি খারাপ দিক ও আছে। শুকনো ফলের চিনি দাঁতের মধ্যে লেগে যায় এবং ব্যাকটেরিয়ার গঠনে সাহায্য করে ও দাঁতের রঙ নষ্ট করে। এছাড়াও শুকনো ফলে উচ্চ মাত্রার সালফাইট থাকে যা ফ্রি র‍্যাডিকেলের পরিমাণ বৃদ্ধি করে এবং কোলাজেনের বৃদ্ধিকে বাঁধা দেয়।

২। কফি

কফি পান করলেও দাঁতের রঙ নষ্ট হতে পারে। কফি দাঁতে এসিডের সংস্পর্শ দেয় এবং এতে চিনি যোগ করলে দাঁতে ব্যাকটেরিয়ার বৃদ্ধি হতে সাহায্য করে।

৩। লেমোনেড

লেমোনেড এসিডে পরিপূর্ণ থাকে বলে দাঁতের এনামেল নষ্ট হয়ে যেতে পারে। তাছাড়া এতে যে চিনি থাকে তা ত্বকের জন্য ক্ষতিকর। তাই হাইড্রেটেড থাকার জন্য শুধু পানি পান করা উচিৎ। যদি সুস্বাদু পানীয় পান করতে চান তাহলে ফলের রস পান করতে পারেন।

৪। ক্যান্ডি

এই মিষ্টি খাবারটি শুধু দাঁতের মধ্যে আঠার মত লেগেই থাকেনা বরং মুখেও দীর্ঘ সময় যাবত থাকে, কারণ এটি খুব সহজে গলে না। তাই ক্যান্ডি খেলেই মনে রাখবেন যে এটি আপনার দাঁতে দাগ সৃষ্টি করতে পারে এবং এর ফলে আপনাকে বয়স্ক দেখাতে পারে।

৫। এয়ারাটেড ড্রিংক

এয়ারেটেড ড্রিংকে (কোলাজাতীয় পানীয়) যে এসিড থাকে তা আপনার দাঁতের রঙ নষ্ট করতে পারে। তাই খাওয়ার সময় বা টিভি দেখার সময় এ ধরনের পানীয় পান করা এড়িয়ে চলুন এবং এটি দ্রুত শেষ করার চেষ্টা করুন।

দাঁত সাদা রাখার জন্য যা করবেন

· চা-কফি পান করার পরে দাঁত ব্রাশ করে নিতে পারেন।

· যদি ব্রাশ করা সম্ভব না হয় তাহলে পানি দিয়ে কুলকুচি করে নিতে পারেন।

· কোমল পানীয় পান করার সময় স্ট্র ব্যবহার করতে পারেন।

· দাঁত খুব বেশি হলুদ হয়ে গেলে ডেন্টিস্টের কাছে গিয়ে পরিষ্কার করিয়ে নিতে পারেন।

সূত্র : দ্যা হেলথ সাইড ও ওয়েব এমডি