মেইন ম্যেনু

যে ৮টি কারণে জীবনে মেয়েদের একা থাকাই ভাল!

একাকীত্ব নিয়ে অনেক মহিলাই খুব চিন্তিত হন, ডিপ্রেশনও ভর করে। কিন্তু ভাল করে ভেবে দেখলে এর চেয়ে সুবিধাজনক ব্যবস্থা আর কিছু হয় না মেয়েদের পক্ষে। একা থাকাটা বহু ক্ষেত্রেই অভিশাপ তো নয়ই, বরং সুখের হয়।

১) প্রথম এবং প্রধান সুবিধে হলো কাউকে জবাবদিহি করার নেই। কখন বাড়ি ঢুকছেন, কখন বেরোচ্ছেন, অফিসে কতক্ষণ বেশি কাজ করছেন, কোন বন্ধুর হাত ধরে সিনেমা দেখতে যাচ্ছেন, সেই সব কৈফিয়ত কাউকে দিতে হয় না।

২) সারাদিন সোশ্যাল মিডিয়ায় অ্যাক্টিভ থাকলেও কারো কিছু বলার নেই। রাতভর গল্প করলেও কেউ শাসন করার নেই।

৩) মেয়েদের সবচেয়ে বড় আতঙ্ক— শ্বশুরবাড়ি,শাশুড়ি-ননদ ইত্যাদি নিয়ে কোনো চাপ থাকে না। শ্বশুরবাড়ির অত্যাচার বহু মেয়ের জীবন শেষ করে দেয় তো বটেই, সবকিছু স্বাভাবিক থাকলেও সারা জীবন একটা চাপা টেনশন ও স্ট্রেস কাজ করে। মেয়েদের বহু শারীরিক সমস্যার মূলে থাকে শ্বশুরবাড়ি সংক্রান্ত চাপ।

৪) একা থাকা মানেই অর্থনৈতিক স্বাধীনতা। নিজের টাকাপয়সার উপরে নিজেরই নিয়ন্ত্রণ। কোন কসমেটিক্স কিনতে কত টাকা খরচ হলো তা নিয়ে প্রশ্ন তোলার সাহস কারো নেই।

৫) স্বামী বা পার্টনার যেহেতু নেই তাই তাদের ঘিরে পরকীয়ার সন্দেহও নেই। অন্য কোনো মেয়ে এসে সংসার ভেঙে দিল, এমন দুশ্চিন্তা করার কোনো জায়গাই নেই।

৬) একা থাকা মানেই কিন্তু জীবন প্রেমবিহীন নয়। যখন খুশি, যেমন খুশি প্রেম করতে কোনো বাধা নেই। রাতবিরেতে ডেটিং করে ফিরলেও কেউ চোখ রাঙানোর নেই।

৭) আজকাল সিঙ্গল মাদারহুডকে মান্যতা দিতে বাধ্য হচ্ছে অনেক দেশের সমাজ। একা থাকলেও মেয়েদের মা হওয়ার অভিজ্ঞতা থেকে আটকানোর কেউ নেই।

৮) মহিলা হোক বা পুরুষ, জীবনে একা হলে অনেকটা উদ্বৃত্ত সময় পাওয়া যায়। আর সেই সময়টা জীবনকে সমৃদ্ধ করতে ভালভাবে কাজে লাগানো যায়। যেমন, কোনো বিশেষ হবির চর্চা বা সমাজসেবামূলক কাজ। সম্পর্কে থাকলে মেয়েদের বেশিরভাগ সময়টা সেই সম্পর্কের পিছনেই চলে যায়।-এবেলা