মেইন ম্যেনু

যৌতুকের দাবীতে মাগুরায় গৃহবধুকে হত্যার অভিযোগ

মাগুরা প্রতিনিধি : মাগুরার শালিখা উপজেলার সাত নঘুরিয়া গ্রামে যৌতুকের দাবীতে আরজিনা খাতুন(৩১) এক গৃহবধুকে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। নিহতের ভাই ওহিদুজ্জামান বাবু অভিযোগ করেন তাকে হত্যার পর গলায় দড়ি দিয়ে লাশ ঝুলিয়ে রাখার হয়েছে। আরজিনা শালিখার শতপাড়া গ্রামের মৃত হারেজ সরদারের মেয়ে। প্রায় ১৬ বছর আগে একই উপজেলার সাত নঘুরিয়া গ্রামের কৃষক মান্নানের সাথে আরজিনার বিয়ে হয়

নিহতের ভাই ওহিদুজ্জামান বাবু অভিযোগ করে বলেন- বিয়ের পর থেকেই জামাই নানা সময়ে যৌতুকের জন্য তাদের উপর চাপ দিয়ে আসছেন। বাবা মা বেচে না থাকায় ভাইয়েরা মাঝে মধ্যেই জামাইকে টাকা পয়সা দিয়ে আসছে। কিন্তু এতে সন্তুষ্ট না হয়ে আরো টাকার দাবীতে মান্নান, তার মা সবুরা বেগম, বড় ভাই সিদ্দিক মিয়া ও বড় ভাবি মিলে আরজিনার উপর অকথ্য নির্যাতন চালিয়ে আসছে। গত কয়েকদিন আগেও স্বামীর মারপিট সহ্য করতে না পেরে আরজিনা রক্তাক্ত শরীরে বাবার বাড়িতে চলে আসে। পরে তাকে চিকিৎসা করিয়ে সুস্থ্য করে ৯০ হাজার টাকা দিয়ে শ্বশুরবাড়িতে পাঠানো হয়। বৃহস্পতিবার ভোরে মান্নানের বাড়ির লোকেরা খবর দেয় আরজিনা স্ট্রোক করে মারা গেছে। পরে তারা গিয়ে বোনের গলায় দড়ি দেয়া ঝুলন্ত লাশ দেখে সন্দেহ হলে পুলিশে খবর দেয়া হয়। এ সময় মান্নান ও তার পরিবারের সদস্যরা পালিয়ে যায়।

ওহিদ দাবী করেন লাশের গায়ে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। এছাড়া দড়ির চিহ্ন গলার পরিবর্তে ঘাড়ে রয়েছে। তাতে তারা সন্দেহ করছেন আরজিনাকে শ্বাস রোধ করে হত্যার পর ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে। তারা এ হত্যাকান্ডের সুষ্ঠু বিচারের দাবী জানান।

শালিখা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবু জিহাদ খান জানান- এ ব্যাপারে শালিখা থানায় একটি মামলা হয়েছে। নিহতের লাশ ময়না তদন্তের জন্য মাগুরা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।