মেইন ম্যেনু

যৌন কামনা নিয়ে সানির ১২ গল্প!

একই অঙ্গে কত রূপ! পর্নস্টারের পর বলিউড অভিনেত্রী। এবার হলেন লেখক। বলছি সানি লিওনের কথা। তিনি এখন লেখালেখিতে মন দিয়েছেন। তবে কথায় আছে, ঢেকি স্বর্গে গেলেও ধান ভানে। সানি লিওনের বেলায়ও তার ব্যতিক্রম হয়নি। তিনি লিখছেন যৌন কামনা নিয়ে রসালো কেচ্ছা। খবর-বিবিসি’র

দিল্লির এক প্রকাশনা সংস্থা জাগারনাট গত মাসে সানি লিওনের একটি বই প্রকাশ করেছে। সুইট ড্রিমস্‌ নামে এই বইটিতে সানি লিওন যৌন কামনা নিয়ে ১২টি গল্প লিখেছেন। তবে এই গল্পগুচ্ছ বই আকারে বের হয়নি। এগুলো প্রকাশ করা হয়েছে এমনভাবে যেন পাঠকরা মোবাইল ফোনেই গল্পগুলো পড়তে পারেন।

সানি লিওনের বইয়ের প্রচ্ছদ: কী থাকছে সানি লিওনের লেখায়? একটি গল্প লেখা হয়েছে নিউ ইয়র্কের পটভূমিতে। একজন ভারতীয় আইটি এক্সপার্ট কিভাবে স্ট্রিপ ক্লাবের একজন নর্তকীর সাথে সেক্স করেন সেই গল্প বলা হয়েছে এখানে। আরেকটি গল্পে দেখানো হয়েছে সাদাসিধে এক ভারতীয় নারীকে যিনি তার মৃত স্বামীর ভূতের সাথে সহবাস করেন। সানি লিওনের প্রকৃত নাম কারানজিৎ কর। তিনি বিবিসিকে বলেন, “লস অ্যাঞ্জেলসে আমার বাড়ি কিংবা মুম্বাইয়ে ফিল্মের সেট — যখনই সুযোগ পেয়েছি, তখনই বসে ল্যাপটপে এসব গল্প লিখেছি।

প্রথম খসড়া তৈরি করতে সময় লেগেছে চার মাস।“ ক্যানাডায় পাঞ্জাবি শিখ পরিবারে বড় হওয়া সানি লিওন স্বীকার করেন যে ছোটবেলায় তিনি কোন গল্পের বই পড়েননি। তার ঝোঁক ছিল খেলাধুলা আর ফটোগ্রাফির দিকে। ভারতের প্রকাশনা শিল্পের সাথে যারা জড়িত তারা বলছেন, সানি লিওনের যৌন-গল্পের প্রকাশনার সময়টি সঠিক। কারণ এ ধরনের গল্পের বাজার ভারতে ক্রমশই বিস্তার লাভ করছে।

এর পাশাপাশি তার নিজের ভক্তের সংখ্যাও অনেক। ফেসবুক, টুইটার এবং ইন্সটাগ্রাম মিলিয়ে তার মোট অনুসারীর সংখ্যা প্রায় দুই কোটি ২০ লক্ষ। প্রতিনিয়ত এটা বাড়ছে। এরা সবাই যে একজন গল্পকার হিসেবে সানি লিওনের স্বাদ পেতে চাইবেন এতে কোন সন্দেহ নেই। তাই এসব সুড়সুড়িমূলক গল্প লিখেও যে সানি ভালো পয়সা কামাবেন তাতে সন্দেহ নেই।