মেইন ম্যেনু

যৌন হেনস্থার দায়ে ক্ষতিপূরণ দিল ফেসবুক

যৌন হেনস্থার জন্য ফেসবুককে দায়ী করলেন এক বাবা। শুধু ফেসবুককে দায়ী করেই ক্ষান্ত হননি। আদালতে মামলা করার জন্য ঠুঁকে দেন। বিধিবাম দেখে আদালতের বাইরে সেই সমস্যা মিটিয়ে ফেলতে আর্থিক ক্ষতিপূরণ দিল ফেসবুক।

ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর আয়ারল্যান্ডে। সেদেশের এক বাসিন্দা ফেসবুকের বিরুদ্ধে দায়িত্বজ্ঞানহীনতার অভিযোগ তুলে আদালতের দ্বারস্থ হন। তিনি আদালতকে জানান, তার কন্যা ভুয়া বয়স লিখে ফেসবুক অ্যাকাউন্ট খুলেছিল।

১৩ বছর বয়সের আগে ফেসবুকে অ্যাকাউন্ট খুলতে দেওয়া হয় না। কিন্তু, যিনি অ্যাকাউন্ট খুলতে চাইছেন, তার প্রকৃত বয়স যাচাই করে নেওয়ার কোনও ব্যবস্থা ফেসবুক কর্তৃপক্ষ রাখেননি।

তাই তার কন্যা ১১ বছরেই ফেসবুকে একাধিক অ্যাকাউন্ট খুলতে পেরেছিল। সেখানে নিজের বিভিন্ন ছবি সে আপলোড করত এবং একাধিক পুরুষকে অনলাইন যৌনাচারে আহ্বান করত। সুযোগ নিয়ে অনেকেই তার কন্যাকে নানা ভাবে শোষণ করেছে বলে উত্তর আয়ারল্যান্ডের সেই অভিযোগকারী দাবি করেছেন।

ফেসবুক কর্তৃপক্ষ প্রকৃত বয়স যাচাই করে নিলে এই পরিস্থিতি তৈরি হত না বলে অভিযোগকারীর দাবি। অ্যাকাউন্ট খোলার পদ্ধতিতে এই গলদ থাকার ফলে আরও অনেকেই এই ধরণের শোষণের শিকার হতে পারে বলে তার আশঙ্কা।

কয়েক বছর ধরেই এ নিয়ে আইনি জটিলতা চলছিল। আদালতের রায় আসা পর্যন্ত এই জটিলতা আর জিইয়ে রাখতে চাননি মার্ক জুকেরবার্গের আইনি পরামর্শদাতারা। তাই আদালতের বাইরেই নিষ্পত্তির ব্যবস্থা। কত টাকা ক্ষতিপূরণ হিসেবে দেওয়া হয়েছে তা অবশ্য ফেসবুক কর্তৃপক্ষ জানাননি। অভিযোগকারী ও তাঁর পরিবারের পরিচয়ও গোপন রাখা হয়েছে।