মেইন ম্যেনু

বাজেট প্রতিক্রিয়ায় হান্নান শাহ

‘রং হেডেড ওমেন বলবে বাহ কী বাজেট দিলাম’

বর্তমান সরকারের বাজেট পেশ নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্দেশ্যে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আ স ম হান্নান শাহ বলেন, ‘এই রং হেডেড ওমেন বাজেট দিয়ে বলবে বাহ বাহ কী বাজেট দিলাম!’

তিনি বলেন, ‘‘বর্তমান প্রধানমন্ত্রীর মাথা খারাপ মহিলা তা আমি বলিনি। মহামান্য সুপ্রিম কোর্ট রায়ে ‘শেখ হাসিনাকে রং হেডেড ওমেন’ আখ্যা দিয়ে ছিলেন।’’

জাতীয় প্রেস ক্লাব কনফারেন্স লাউঞ্চে বৃহস্পতিবার বিকেলে তিনি এ সব কথা বলেন। শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৩৪তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে এ আলোচনা আয়োজন করে জাতীয়তাবাদী তাঁতী দল।

হান্নান শাহ বলেন, ‘আজকে অনৈতিক জবরদখলকারী সরকার ২ লাখ ৯৫ হাজার ১০০ কোটি টাকার বাজেট দিয়েছেন, উনারা দেশটাকে নিজেদের জমিদারি মনে করেন।’

তিনি বলেন, ‘এই টাকা আসবে কোথায় থেকে, জনাব অর্থমন্ত্রী আপনি অনেক লেখাপড়া জানেন। আমিও লেখাপড়া কম জানি না। এই টাকা গার্মেন্ট খাত থেকে আসবে, প্রবাসীদের রেমিটেন্স থেকে আসবে। কিন্ত এই গার্মেন্ট তৈরি করেছেন কে? জিয়াউর রহমান। একটু কৃতজ্ঞতা নেই। আপনাদের কৃতজ্ঞতা থাকবে কীভাবে আপনারা তো সেই আওয়ামী লীগ যারা নিজেদের নেতা ফেলে মন্ত্রী হতে চলে যান।’

জিয়াউর রহমানের অকাল মৃত্যু নয়, এটি পরিকল্পিত হত্যাকান্ড উল্লেখ করে আ স ম হান্নান শাহ বলেন, ‘আমি বিএনপি করি, তারপরও বলছি, আমরা জিয়াউর রহমানকে সঠিকভাবে তুলে ধরতে পারি নি। তার প্রণীত ১৯ দফা নিয়ে কয়টি প্রোগ্রাম হয়? কয়টি অনুষ্ঠান হয়? শুধু জন্ম এবং মৃত্যুবাষির্কীতে হাতে গোনা কয়েকটি প্রোগ্রাম আয়োজন করা হয়। এভাবে জিয়াউর রহমানকে সঠিকভাবে জানা যাবে না।’ এ সময় তিনি জিয়াউর রহমানের রাজনৈতিক ও সামরিক বাহিনীতে কাজ করার বিভিন্ন স্মৃতিময় ঘটনা তুলে ধরেন।

তিনি বলেন, ‘ছাত্রদল আছে, নেতাও আছে, কিন্তু যেভাবে ছাত্রদলকে গড়ে তোলার দরকার সেইভা বে করা হচ্ছে না। তৃনমূলের লক্ষ লক্ষ কর্মী চাইলেও তাদেরকে সংগঠিত করা হচ্ছে না।’

তাঁতী দলের সভাপতি মো. হুমায়ূন ইসলাম খানের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন, বিএনপির সহ সাংগঠনিক সম্পাদক এ্যাডভোকেট আব্দুস সালাম আজাদ, মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদক শিরিন সুলতানা, সহ-প্রচার সম্পাদক ইমরান সালেহ প্রিন্স, বিএনপির নিবার্হী কমিটির সদস্য এ্যাডভোকেট রফিক শিকদার, যুবদলের সহ সভাপতি ফজলুর রহমান, সাবেক ছাত্রদল নেতা শহিদুল ইসলাম বাবুল, আমিরুজ্জামান খান শিমুল, তাঁতী দলের সহ-সভাপতি জাহাঙ্গীর আলমসহ সংগঠনের নেতারা।

এ ছাড়া ডেমোক্রেটিক লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুদ্দিন আহমেদ মনি বক্তব্য রাখেন। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন তাঁতী দলের সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ।

অনুষ্ঠানের শুরুতে জিয়াউর রহমান ও তার ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকোর আত্মার মাগফেরাত কামনা করে দোয়া ও মোনাজাত করা হয়।