মেইন ম্যেনু

রক্তপাত কি কুমারীত্বের পরিচয় ?

‘আমার বয়ফ্রেন্ড বিশ্বাসই করতে চায় না যে আমি ‘ভার্জিন‘‚ কারণ প্রথমবার সেক্স করার পর আমার কোন রক্তপাত হয় নি । আচ্ছা এটা কি নর্মাল? আর প্রথমবার ইন্টারকোর্স করার পর সব মহিলারাই কি ব্যথা অনুভব করেন ?‘

এই প্রশ্ন নিশ্চই আপনাদের মনেও এসেছে বহুবার? এই বিষয়ে কথা বলার আগে জানিয়ে রাখি কোন মহিলা ‘ ভার্জিন‘ কী না সেটা প্রথমবার সেক্স করার পর বোঝা মুশকিল । এমন অনেক মহিলাই আছেন যাদের প্রথমবার মিলিত হওয়ার পর রক্তপাত হয় না । রক্তপাত না হওয়ার পিছনে আছে বেশ কিছু কারন । আসুন দেখা যাক সেগুলো কী কী?

১ ) প্রথমবার রক্তপাত হবে কী হবে না তা নির্ভর করে ‘হাইমেন‘ এর গঠনের ওপরে । হাইমেন একটি অতীব সুক্ষ্ম টিস্যু যা মহিলাদের জন্মনোর সময় থেকেই থাকে । অনেকের ক্ষেত্রে প্রথমবার ‘ইন্টরকোর্সের‘ সময় এটা ছিঁড়ে যায়‚ ফলে রক্তপাত হয় । । মাঝে মাঝে আবার এটা জন্মনোর থেকেই ছেঁড়া থাকে বা এমন বহু মহিলা আছে যাঁদের এটা থাকেই না । তাই রক্তপাতও হয় না ।

২ ) আগেই বলেছি এই হাইমেন খুব সুক্ষ্ম টিস্যু যা সহজেই যে কোন সময় ছিঁড়ে যেতে পারে । দৌড়ানো‚ সাইকেল চালানো‚ সাঁতার বা যাঁরা খুব এক্সারসাইজ করেন তাঁদের এই হাইমেন ছিঁড়ে যেতে পারে এবং অনেক ক্ষেত্রেই তা জানাও যায় না ।

৩ ) পরিশেষে‚ সঙ্গমের আগে যদি স্বমেহন করা হয় তাহলেও অনেক সময় হাইমেন ছিঁড়ে যেতে পারে । বা যে সব মহিলারা ট্যাম্পুন ব্যবহার করেন‚ তাদের ক্ষেত্রেও এটা প্রযোজ্য ।

ওপরের কারণগুলো পড়ে নিশ্চই বুঝতে পারছেন রক্তপাতের সঙ্গে ‘ভার্জিন‘ হওয়ার কোন সম্পর্ক নেই ।

এবার আসা যাক ব্যথার কথায় । ভ্যাজাইনাতে লুব্রিকেশন এর অভাবে ব্যথা হয় । ভ্যাজাইনা যেহেতু একটি মাসকুলার ওর্গান তাই ইন্টারকোর্সের সময় নিজেকে বিস্তীর্ন করে‚ ফলে ব্যথা হওয়ার কথা নয় । কিন্তু বেশিরভাগ মহিলারাই প্রথমবার প্রচন্ড ভয় আর নার্ভাস থাকেন ফলে ভ্যাজাইনা টাইট হয়ে যায় এবং ইলাস্টিসিটি কমে যায়‚ ফলে লুব্রিকেশন কমে যায় । কিন্তু এই সময় আপনি যদি পর্যাপ্ত পরিমাণে অ্যারাউজড থাকেন তাহলে যৎসামান্য বা একেবারেই ব্যথা অনুভব করবেন না ।