মেইন ম্যেনু

রনির অস্ত্রের লাইসেন্স বাতিলের আবেদন করবে পুলিশ

রাজধানীতে জোড়া খুনের ঘটনায় আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য পিনু খানের ছেলে বখতিয়ার রনির লাইসেন্স করা অস্ত্র বাতিলের আবেদন করা হবে। ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) গোয়েন্দা ও অপরাধ তথ্য বিভাগের (ডিবি) যুগ্ম কমিশনার মনিরুল ইসলাম এ তথ্য জানান।

রাজধানীর মিন্টো রোডে ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে বুধবার দুপুরে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন তিনি। এ সময় মনিরুল ইসলাম বলেন, ‘ডিবির তদন্তে পাওয়া তথ্য এবং গাড়িচালকের দেওয়া জবানবন্দীর পরিপ্রেক্ষিতে রনি যে ওই ঘটনার সঙ্গে সম্পৃক্ত, তা নিয়ে কোনো সন্দেহ নেই। যে অস্ত্রটি দিয়ে গুলি করা হয়েছিল, তার ব্যালেস্টিক পরীক্ষার পর আরো নিশ্চিত হওয়া যাবে। পরীক্ষায় গুলির ঘটনার সত্যতা প্রমাণিত হলে অস্ত্রের লাইসেন্স বাতিলের আবেদন করা হবে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে রনিও গুলি ছোড়ার কথা স্বীকার করেছেন।’

প্রসঙ্গত, ১৩ এপ্রিল গভীর রাতে নিউ ইস্কাটনে মদ্যপ অবস্থায় রনি নিজ গাড়ি থেকে এলোপাথাড়ি গুলি ছোড়েন। এতে রিকশাচালক হাকিম ও অটোরিকশাচালক ইয়াকুব আলী আহত হন। পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ১৫ এপ্রিল হাকিম এবং ২৩ এপ্রিল ইয়াকুব মারা যান।

ওই ঘটনায় নিহত হাকিমের মা মনোয়ারা বেগম ১৫ এপ্রিল রমনা থানায় অজ্ঞাত কয়েকজনকে আসামি করে মামলা করেন।

২৪ মে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশকে মামলাটির তদন্তের দায়িত্ব দেওয়া হয়। দায়িত্ব পাওয়ার পর গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে ৩১ মে এলিফ্যান্ট রোডের বাসা থেকে বখতিয়ার আলম রনিকে আটক করা হয়। বখতিয়ার আলম রনি মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক (ভারপ্রাপ্ত) ও সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্য পিনু খানের ছেলে।