মেইন ম্যেনু

“রমজানে পানি না দিলে আল্লাহ কিন্তু বিচার করবে”

রমজান মাসে পানি ও বিদ্যুৎ সরবরাহ ঠিক রাখতে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দিয়েছেন স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন।

রোববার সচিবালয়ে আয়োজিত এক সভায় তিনি এ কথা বলেন। রমজানের পবিত্রতা রক্ষা এবং নাগরিক সেবা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে এ সভার আয়োজন করা হয়।

এলজিআরডি মন্ত্রী বলেন, ‘বিশেষ করে ঢাকা ওয়াসাকে সর্বোচ্চ সতর্ক থাকতে বলছি। অন্তত রমজান মাসে যেন মানুষ পানির জন্য কষ্ট না করে। ঢাকায় পৌনে দুই কোটি লোকের ৯০ থেকে ৯৫ ভাগ রোজা রাখেন। প্রতিদিন কোনো না কোনো এলাকায় ওয়াসার পানির স্বল্পতা দেখা দেয়।’

তাই মন্ত্রী বলেন, ‘রমজানে পাইপ লাইনের মাধ্যমে পানি সরবরাহ করতে না পারলে বাড়ি বাড়ি গিয়ে পৌঁছে দিতে হবে। আর মানুষ দরজা খুললে মাফ চাইতে হবে। মন্ত্রী হিসেবে আমি এটা নির্দেশ দিচ্ছি। রমজানে পানি না দিলে আল্লাহ তার বিচার করবে।’

মোশাররফ বলেন, ‘রজমানের পবিত্রতা রক্ষা সামাজিক, নৈতিক ও ধর্মীয় কাজ। রমজানের পবিত্রতা রক্ষায় নাগরিক সেবা নিশ্চিতে কোনো ধরনের শিথিলতার সুযোগ নেই। জনগণের মৌলিক সেবাগুলো তাদের দোড়গোড়ায় পৌঁছে দিতে হবে।’

মন্ত্রী বলেন, ‘নগর এলাকার রাস্তাঘাটের নির্মাণ কাজ ঈদের অন্তত ১০ দিন আগ থেকে বন্ধ রাখতে হবে, যাতে জনসাধারণের চলাচল নির্বিঘ্ন হয়।’

সেহরি ও ইফতারের সময় নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহের জন্য দু-একদিনের মধ্যে বিদুৎ প্রতিমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলবেন বলেও জানান মন্ত্রী। সেই সঙ্গে তিনি বলেন, ‘ফরমালিনকে রেস্ট্রিকটেড আইটেম করতে বাণিজ্যমন্ত্রীর সঙ্গেও কথা বলবো।’

সিটি করপোরেশনের মেয়রসহ সংশ্লিষ্টদের উদ্দেশ্যে মন্ত্রী বলেন, ‘নাগরিক সেবা নিশ্চিত করতে যেকোনো অসুবিধা হলে আমাদের জানান। আমরা আপনাদের পাশে দাঁড়াবো। সেবা দেয়া আমাদের দায়িত্ব, এই দায়িত্ব এড়ানোর শক্তি আমাদের নেই।’

সভায় ঢাকার মগবাজার-মৌচাক ফ্লাইওভার নির্মাণ কাজের জন্য রাস্তায় যেসব প্রতিবন্ধকতা রয়েছে সেগুলো অপসারণ, নগরিক রাস্তাঘাট পরিষ্কার রাখা, ফুটপাতে জনগণের চলাচল নির্বিঘ্ন রাখা এবং অবৈধ দখলদার উচ্ছেদে সিটি করপোরেশন কর্মকর্তাদের নির্দেশনা দেয়া হয়।

এলজিআরডি মন্ত্রীর সভাপতিত্বে আয়োজিত সভায় উপস্থিত ছিলেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র সাঈদ খোকন, নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভি, বরিশাল সিটি করপোরেশনের মেয়র আহসান হাবিব কামাল প্রমুখ।