মেইন ম্যেনু

রহস্যময়ী নারীর খপ্পরে জারদারি!

এক রহস্যময়ী নারীর খপ্পরে পড়ে মানসম্মান ধুলোয় মিশে যেতে বসেছে জারদারির। পাকিস্তানিদের মুখে মুখে এই নারীর গল্প। কে এই নারী? জারদারির সঙ্গে তার কিসের সম্পর্ক? টেনে টেনে বের করা হচ্ছে হাঁড়িনাড়ির খবর।

জারদারি। নতুন করে তার পরিচয় বলার দরকার নেই হয়তো। তবু বলি। পুরো নাম আসিফ আলী জারদারি। পাকিস্তানের প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট। দুই বছর আগেও ক্ষমতায় ছিলেন। এই পরিচয়ের চেয়েও তিনি বেশি আলোকিত তার স্ত্রীর গরীমায়। ‘ডটার অব ইস্ট’ খ্যাত পাকিস্তানের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী বেনজির ভুট্টোর স্বামী জারদারি। তার শ্বশুর পাকিস্তান পিপলস পার্টির (পিপিপি) প্রতিষ্ঠাতা ও প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী জুলফিকার আলী ভুট্টো। তিনি প্রেসিডেন্টও ছিলেন। ভুট্টো পরিবারের বিশাল ঐতিহ্যের কাছে জারদারি ঠুনকোই বলা যায়।

পাকিস্তানের ইতিহাসে নির্বাচিত সরকারের প্রেসিডেন্ট হিসেবে পূর্ণ মেয়াদে দায়িত্ব পালনের রেকর্ড করেন ৫৯ বছর বয়সি জারদারি। তিনি ছিলেন ১১তম প্রেসিডেন্ট। এসব দুই বছর আগের কথা। এখন তিনি রাষ্ট্রের কোনো ক্ষমতায় নেই। পিপিপির সহসভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। ছেলে বিলাওয়াল ভুট্টো সভাপতি। দল গোছানোয় ব্যস্ত বাপ-বেটা।

এই অবস্থায় এক নারী এসে সব উল্টোপাল্টা করে দেওয়ার উপক্রম করেছেন। জারদারি এই নারীকে নাকি বিয়ে করেছেন! ছিঃ ছিঃ পড়ে গেল দেশজুড়ে। বেনজির ভুট্টোর স্বামী বিয়ে করেছেন? তা কী হয়! হুজুগে লোকজনকে গল্পের রসদ জোগালো গণমাধ্যম। অনুসন্ধানী রিপোর্ট প্রকাশ করে জানানোর চেষ্টা করা হলো এই নারীর পরিচয়।

রহস্য ঘনীভূত
জারদারির নামের সঙ্গে জড়িয়ে যাওয়া রহস্যময়ী নারীর নাম তানভির জামানি। কিন্তু তার পুরো পরিচয় নিয়ে একেক গণমাধ্যমে একেক ধরনের খবর প্রকাশ করা হয়েছে।

swe4

ডেইলি পাকিস্তানের অনুসন্ধানী প্রতিবেদনের সঙ্গে তানভির জামানির জন্মসনদের কপি প্রকাশ করা হয়েছে। এতে দেখা যাচ্ছে, তানভির জামানির জন্ম ১৯৬৩ সালে। তার বাড়ি হায়দরাবাদে। কিন্তু কোন হায়দারাবাদে? ভারতের হায়দরাবাদ নাকি পাকিস্তানি হায়দরাবাদ। এই নামে দুই দেশেই দুটি স্থান রয়েছে। ফলে বিষয়টি পরিষ্কার নয়। তবে তানভির জামানি উল্লেখ করেছেন তিনি পাকিস্তানি নাগরিক।

এ ছাড়া পাকিস্তানের পাসপোর্ট নেওয়ার জন্য যুক্তরাষ্ট্রে পাকিস্তানি দূতাবাসে তিনি যেসব কাগজপত্র জমা দিয়েছেন তাতে তার বাবার নাম দেওয়া হয়েছে আহমেদ আলী ইয়াহিয়া, স্বামীর নাম তেহসেন ফারুকি। বর্তমান ঠিকানা যুক্তরাষ্ট্রে হলেও স্থায়ী ঠিকানা হিসেবে ব্যবহার করেছেন পাকিস্তান। নিজেকে করাচির অধিবাসী হিসেবে দাবি করেছেন। ফলে জন্মসনদের সঙ্গে তার পাসপোর্টের তথ্যের কোনো মিল নেই। গণমাধ্যমের এমন খবরে তানভির জামানিকে নিয়ে রহস্য আরো ঘনীভূত হয়েছে।

তানভির জামানি তাহলে কোন দেশের বাসিন্দা? জারদারির সঙ্গে তার কোথায় পরিচয় হলো, কীভাবে হলো? পাকিস্তানি গণমাধ্যম দুনিয়া নিউজ এই প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করেছে। বলা হয়েছে, তানভির জামানি যুক্তরাষ্ট্রের শিকাগোয় থাকেন। পেশায় চিকিৎসক। তার স্বামী জাভাইদ সিদ্দিকিও একজন ডাক্তার। সম্ভবত যুক্তরাষ্ট্রেই জারদারি ও জামানির দেখা হয়। সেখান থেকেই পরিচয়, তারপর প্রণয়, শেষে পরিণয়!

we4r5t

পাকিস্তানের কয়েকটি পত্রিকায় এমনও দাবি করা হয়েছে, তানভির জামানি ও জারদারির এক সন্তান রয়েছে। তার নাম সজল। সে মায়ের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রে থাকে। কিন্তু এ তথ্যের কোনো বৈধ ভিত্তি কেউ হাজির করতে পারেনি।

গণমাধ্যমে বলা হয়েছে, তানভির জামানি হয়তো পিপিপির রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত। যেমন এক্সপ্রেস ট্রিবিউন জানিয়েছে, পিপিপির যুক্তরাষ্ট্র শাখার প্রেসিডেন্ট তিনি।

এদিকে পিপিপির পক্ষ থেকে সংবাদ সম্মেলন করে জানানো হয়েছে, তানভির জামানি নামে কারো সঙ্গে কোনো সম্পর্ক নেই জারদারির। দেশে বা বিদেশে তিনি পিপিপির কোনো নেতাও নন। তানভির জামানির সঙ্গে জারদারির বিয়ে নিয়ে যা প্রচার-প্রকাশ হচ্ছে, তা একেবারেই গুজব ও ভিত্তিহীন। মিডিয়াকে এই গুজব ছড়ানো থেকে দূরে থাকার আহ্বান জানিয়েছে পিপিপি। এ ছাড়া অভিযোগ করা হয়েছে, পিপিপিকে রাজনৈতিকভাবে ঘায়েল করার জন্য কোনো পক্ষ এই অপতৎপরতায় নেমেছে। তাদেরকেও সাবধান করা হয়।

dfrt56y

পিপিপি এমন দাবি করলেও বিভিন্ন টিভি চ্যানেলে টক শোতে অংশ নিয়ে তানভির জামানি জারদারির নেতৃত্বের ভূয়সী প্রশংসা করে চলেছেন। রাজনৈতিক দল হিসেবে পিপিপির অবদানকেও তিনি ফুটিয়ে তুলছেন।

কেন তিনি পিপিপির পক্ষে কথা বলছেন- এমন প্রশ্নের জবাবে তানভির জামানি বলেছেন, ভালো লাগা থেকে। কিন্তু পিপিপির কোনো পদে তিনি আছেন কি না- এমন প্রশ্নের উত্তর তিনি এড়িয়ে গেছেন।

আর সবচেয়ে বড় যে প্রশ্ন, জারদারির সঙ্গে তার কিসের সম্পর্ক- এর উত্তরে তিনি কোনো মন্তব্য করেননি। তার এই মৌনতা আরো বেশি রহস্য সৃষ্টি করেছে। এ ছাড়া জারদারি ও তার কোনো ছেলে আছে কি না, এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেছেন, পাকিস্তানের সব সন্তান আমার সন্তান। এসবের মানে কী? এখনো সঠিক কোনো উত্তর মেলেনি।