মেইন ম্যেনু

রাউজান পাইওনিয়ার হসপিটাল মুক্তিযোদ্ধা ও সাংবাদিকদের অর্ধেক মূল্যে চিকিৎসা সেবা দেবে

উত্তর চট্টগ্রামের উপজেলা পর্যায়ে সর্বাধুনিক বেসরকারি চিকিৎসা সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান রাউজান নোয়াপাড়া পাইওনিয়ার হসপিটাল ও ডায়োগনিষ্টিক সেন্টার সব ক্ষেত্রে চিকিৎসা সেবায় রাউজানের মুক্তিযোদ্ধা ও সংবাদপত্র সেবীদের অর্ধেক খরচে চিকিৎসা সেবা প্রদান করবেন। গতকাল ১৫ জুন প্রতিষ্ঠানটি তৃতীয় প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীতে এই ঘোষনা প্রদান করা হয়। অত্যাধুনিক যন্ত্রপাতি সংযোজন করা এই হসপিটালে চট্টগ্রামের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকগণ চিকিৎসা সেবা প্রদান করেন।

হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ গতকাল স্থানীয় সাংবাদিক ও সুধিজনদের সাথে এক মতবিনিময় সভায় জানায় গত তিন বছরে এই হাসপাতালে অনেক জটিল রোগীর সফল চিকিৎসা ও অপারেশন করা হয়েছে। এই হাসপাতালে ইতিপূর্বে বিদেশিরা এসে চিকিৎসা সেবা দেখে সন্তোষ প্রকাশ করে গেছেন। বিনা খরচে শতাধিক মহিলার জরায়ু অপারেশন করা হয়েছে। এই প্রতিষ্ঠানটি দুস্থ রোগীদের চিকিৎসা সেবায় গঠন করেছেন রোগী কল্যাণ তহবিল। হাসপাতালের তথ্যানুসারে গত তিন বছরে এখান থেকে প্রায় ১৪ হাজার রোগী চিকিৎসা বেসা গ্রহন করেছে।

এখানে সাধারণ ভেজাইনাল ডেলিভারী হয়েছে ২ হাজার ৩শ ৮৮জন। বিভিন্ন ধরণের অপারেশন হয়েছে প্রায় আড়াই হাজার। প্রায় দেড়’ শ জনবল নিয়ে চিকিৎসা সেবাদানকারী এই প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান ডা.ফজল করিম বাবুল বলেন আধুনিক হাসপাতালটি চিকিৎসা সেবায় প্রায় ১০ কোটি টাকা বিনিয়োগ করা হয়েছে। প্রতিষ্ঠানের সাথে জড়িতরা এত টাকা বিনিয়োগে আগ্রহী হয়েছে রাউজানের সাংসদ এবিএম ফজলে করিম চৌধুরীর অনুপ্রেরণায়।

রাউজানের গণমানুষের চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করতে তিনি সরকারি হাসপাতালে পাশাপাশি আধুনিক যন্ত্রপাতি সমৃদ্ধ পাইওনিয়ার হাসপাতালটি প্রতিষ্ঠার জন্য সর্বাত্বক সহয়তা প্রদান করায় এই বেসরকারি হাসপাতালটি আজকের এই পর্যায়ে এসে সকলের সুনাম অর্জন করছে।

চেয়ারম্যান ডা.ফজল করিম বাবুলের সভাপতিত্বে এই মত বিনিময় সভায় শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক শুভময় দাশগুপ্ত রাজু। পরিচালক মঞ্জুর হোসেনের পরিচালনায় প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ছিলেন দৈনিক আজাদী সিনিয়র সহসম্পাদক খোরশেদ আলম।

বিশেষ অতিথি ছিলেন পূর্বকোণের সহসম্পাদক জাহাঙ্গীর টুটুল, প্রতিষ্ঠানের পরিচালক সমাজ সেবক আলহাজ্ব মোহাম্মদ শফি, কামরুল ইসলাম বাবু, । আলোচনায় অংশ গ্রহন করেন সাংবাদিক শফিউল আলম, জাহেদুল আলম, প্রদীপ শীল, এসএম ইউছুপ উদ্দিন, সাহেদুর রহমান মোরশেদ, নেজাম উদ্দিন রানা, মহিউদ্দিন ইমন।

অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ব্যাংঙ্কার সন্তোষ কুমার ভৌমিক, মীর মোহাম্মদ আসলাম, মোহাম্মদ ওসমান গনি, দেলোয়ার হোসেন, রমজান আলী, এম,কামাল উদ্দীন, জয়নাল আবেদীন জুবাইর প্রমূখ। আলোচনা সভা শেষে কেক কেটে তৃতীয় বার্ষিকী অনুষ্ঠান পালন করা হয়।