মেইন ম্যেনু

রাজকন্যার জন্য ৩২ লাখ টাকার টয়লেট

কম্বোডিয়ার দরিদ্রতম একটি প্রদেশে থাই রাজকন্যার সফর উপলক্ষে ৪০ হাজার মার্কিন ডলার ব্যয়ে লেকের পাড়ে একটি শীততাপ নিয়ন্ত্রিত টয়লেট স্থাপন করা হয়েছে। এটা নিয়ে কম্বোডিয়ায় ছড়িয়ে পড়েছে বিতর্ক।

বিলাসবহুল এই টয়লেটটি তৈরি করা হয়েছে কম্বোডিয়ার রাতানাক্কিরি প্রদেশের সুরক্ষিত ইয়াক লাওম লেকের পাড়ে। থাইল্যান্ডের রাজকন্যা মাহা ছাকরি সিরিনধর্ন তার ৩ দিনের সফরকালে এখানে বিশ্রাম নেবেন। আভ্যন্তরীণ টয়লেটসহ ৮ মিটার দীর্ঘ এই চারকোনা প্রমোদভবন তৈরিতে থাই নির্মাণ প্রতিষ্ঠান এসসিজির ১৯ দিন সময় লেগেছিল।

মজার বিষয় হচ্ছে, থাই রাজকন্যা তার ৩ দিনের সফরের মধ্যে মাত্র একদিন এখানে কাটাবেন। তিনি চলে যাওয়ার সাথে সাথেই এই টয়লেট ভবন ভেঙ্গে ফেলা হবে। স্থানীয় সংবাদপত্র খেমার টাইমসের মতে, টয়লেট তৈরির সমস্ত সরঞ্জাম নিয়ে আসা হয়েছিল থাইল্যান্ড থেকে।

উল্লেখ্য, কম্বোডিয়ার সাধারণ মানুষের জন্য লেকের পাড়ে যে টয়লেটের ব্যবস্থা রয়েছে সেটা অস্বাস্থ্যকর এবং অনেক ক্ষেত্রেই ব্যবহারের অনুপযুক্ত।

এই দামী টয়লেটটি রাজকন্যার ব্যবহারের পরপরই কেন ভেঙ্গে ফেলা হবে সেই প্রশ্নের জবাবে থাই নির্মাণ প্রতিষ্ঠান এসসিজির ম্যানেজার পুরসাত বলেন, ‘আপনাদের যদি একজন রাজা থাকে, তাহলে সাধারণ মানুষ সেই রাজার বাথরুম ব্যাবহার করতে পারবে না এটাই স্বাভাবিক।’