মেইন ম্যেনু

রাজপথের যত্নকারী এই মানুষগুলো সম্পর্কে আমরা কতটুকু জানি?

‘মানুষ সৌন্দর্যের পূজারী’ কথাটা নিতান্তই সত্য। প্রত্যেক মানুষই চায় সুন্দর একটি পরিবার, পরিবেশ, সুন্দর একটি পৃথিবী। চলার পথের সৌন্দর্যটা আমরা একটু বেশিই উপভোগ করি।

রাজধানী ঢাকার সড়ক গুলোতে প্রতিদিন প্রায় দুই কোটি মানুষ চলাফেরা করেন। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, অফিস আদালতে যাওয়া-আসার জন্য প্রতিদিন এই নগরীত হাজার হাজার যানবাহন ব্যবহার করি আমরা।

মানুষের পায়ের ধূলো থেকে যানবাহনের ধোয়ায় নগরী হয়ে উঠে কোলষিত। রাতের নিরবতায় কিছুটা সস্থিতে ফিরে রাজধনীর রাজপথ গুলো। আবার ভোর থেকে শুরু হয় এই সড়ক গুলোর উপর অত্যাচার।

কিন্তু কখনো কি আমরা এই সড়ক গুলোর কথা ভেবেছি? কে যত্ন নিচ্ছে এই রাজপথ গুলোর। হয়তো কারো চোখে পড়ে কারো পড়ে না। কেউ কেউ তাদের দেখে থাকেন। খুব ভোরে প্রতিদিনের ব্যবহৃত এই সড়কটির যত্নে নিয়োজিত থাকে কিছু সাধারণ মানুষ।

তারা সেই ফজরেরর নামাজের আজানের পর আসে নগরীর সড়ক গুলোর যত্ন নিতে চলে দুপুর ২টা পর্যন্ত। আমাদের দৈনন্দিন চলার পথের এই সড়ক গুলোর যত্নকারী এই মানুষ সম্পর্কে আমারা কতটুকু জানি? যারা প্রতিদিন আমাদের এতো নির্মল একটি সড়ক উপহার দিচ্ছে?

কথা হচ্ছিল এমন একজনের সাথে যার আদলেই আমাদের মিলছে এমন সুন্দর পরিষ্কার সড়ক। তিনি ফরিদা খাতুন। খুব ভোরে আসেন মিরপর ১ নম্বর থেকে ২ নম্বরের প্রধান সড়ক পরিষ্কার করতে। সাথে আছে আরেক জন পরিচ্ছন্ন কর্মি রাহেলা বেগম।

তারা প্রতিদিন ভোর সাড়ে ৫টায় এসে দুপুর ২টা পর্যন্ত কাজ করেন। রোদ বৃষ্টি কিংবা শীতের সকাল সব সময়ই এ সড়ক গুলোর যত্নে তাদের নিতে হয়।

বিনিময়ে মাস শেষে মিলছে ১৪,০০০ টাকা। আগে তাদের পারিশ্রমিকের পরিমান ছিলো মাত্র ৮০০০ টাকা। তবে অনেক আন্দোলনের পর ৬০০০ টাকা যুক্ত হয়েছে তাদের বেতনের খাতায়।