মেইন ম্যেনু

রাজবাড়ী জেলা আইন-শৃঙ্খলা কমিটির সভা অনুষ্ঠিত

রাজবাড়ী-১ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব কাজী কেরামত আলী বলেছেন ঈদকে সামনে রেখে সড়কপথে ও নৌপথে কোন প্রকার চাদাবাজি বরদাস্ত করা হবে না। মানুষ সারা বছর রাজধানী ঢাকায় অনেক কষ্টে অর্থ উপার্জন করে আর বছরে দুইবার প্রিয়জনদের সাথে ঈদের আনন্দ ভাগ করে নেওয়ার জন্য গ্রামের বাড়ি আসে সেই টাকা যদি পথে পথে চাদা দিতে হয় এর চেয়ে দুঃখের বিষয় আর কিছুই হতে পারে না। আমি ইতিমধ্যে পেপার পরে জানতে পেরেছি দৌলতদিয়া ঘাটে সরকারের টোল ২ টাকা বন্ধ করে দেওয়ার পর হতে লঞ্চ মালিকরা লঞ্চের ভাড়া বাড়িয়ে দিয়েছে।

বর্তমান সরকার দেশের মানুষের কথা বিবেচনা করে দেশের মানুষের সুবিধার জন্য এই ২ টাকার টোল বন্ধ করে দিয়েছে। সরকারের ভাবমূর্তি নষ্ট করার জন্য কিছু অসাধু লঞ্চ মালিক দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে সামান্য পথের ভারা যেখানে ২০ টাকাই জুলুম আবার সেটাকে বাড়িয়ে ২৫ টাকা করা হয়েছে। এটা বন্ধ করা দরকার। আইন শৃঙ্খলা বিষয়ে কাজী কেরামত আলী বলেন রাজবাড়ীর আইন-শৃঙাখলা সব সময় ভালো থাকে, রাজবাড়ীর মানুষ শান্তিপ্রিয়, ইদানিং একটি আতংক মানুষের মাঝে ঢুকেছে সেটা হলো ডাকাত আতংক মাঝে মাঝেই শোনা যাচ্ছে ডাকাতি হচ্ছে কিন্তুু তা নয় একটি মহল সরকারের ভাবমূর্তি নষ্ট করার জন্য এটিকে রটাচ্ছে।

এ ব্যাপারে রাজবাড়ীর পুলিশ সুপারকে ব্যাবস্থা নিতে বলেন তিনি। কাজী কেরামত আলী বিআইড¦লিউটিসি বিআইড¦লিউটিআই কর্মকর্তাদের আরও বলেন দৌলদিয়া হতে কোন যানবাহন ভারা যেন বেশি না নেওয়া হয়। যে পরিমান ভারাই নেওয়া হোক না কেন তার যেন রশিদ প্রদান করা হয়। রাজবাড়ীর আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি ভালো রাখার জন্য মাদক ব্যাবসায়ী চাদাবাজদের ধরিয়ে দিতে সরাসরি পুলিশ সুপারকে ফোন করে তথ্য দিতে বলেন এমপি কাজী কেরামত আলী।

গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে রাজবাড়ীর জেলা প্রশাসনের আয়োজনে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে জেলা আইন-শৃঙ্খলা কমিটির সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে তিনি এসব কথা বলেন।

রাজবাড়ীর জেলা প্রশাসক মোঃ রফিকুল ইসলাম খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন, রাজবাড়ী-১ আসনের সংসদ সদস্য ও জাতীয় সংসদের প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন সংক্রান্ত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি আলহাজ্ব কাজী কেরামত আলী। বিশেষ সম্মানিত অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রনালয় সংক্রান্ত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি সদস্য কামরুন নাহার চৌধুরী লাভলী।

বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন রাজবাড়ীর পুলিশ সুপার জিহাদুল কবির (পিপিএম) অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ মাহাবুবুল হক, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট ড.সৈয়দা নওশীন পর্নিনী, র‌্যাব-৮ ফরিদপুর ক্যাম্পের ইনচার্জ এএসপি খালেদুজ্জামান, রাজবাড়ী সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এ্যাডভোকেট এম এ খালেক, বালিয়াকান্দি উপজেলা পরিষদেও চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ, পাংশা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ফরিদ হাসান ওদুদ, গোয়ালন্দ উপজেলা পরিষদেরচেয়ারম্যান এ বিএম নূরুল ইসলাম,জেলা শিক্ষা অফিসার সৈয়দ সিদ্দিকুর রহমান, বিআইড¦লিইটিসি ম্যানেজার বানিজ্য শফিকুল ইসলাম, রাজবাড়ী পৌরসভার সাবেক মেয়র মহম্মদ আলী চৌধুরী, রাজবাড়ী চেম্বারস-অব কমার্সের পরিচালক জাকির হোসেন, প্রমুখ বক্তৃতা করেন।