মেইন ম্যেনু

রাজশাহীর গোদাগাড়ীতে ট্যাংকির পানি পানে অসুস্থ ১০ মাদ্রাসা শিক্ষার্থী

সরকার দুলাল মাহবুব, রাজশাহী থেকে: রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলার কাকনহাটের তালাই কুন্দলিয়া হাফেজিয়া মাদ্রাসার পানির ট্যাংকের পানি পান করে অন্তত ১০জন শিক্ষার্থী অসুস্থ হয়েছে। রাতে তাদের রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, সোমবার সন্ধ্যায় তালাই কুন্দলিয়া হাফেজিয়া মাদ্রাসার শিক্ষার্থীরা মাগরিবের নামাজের সময় অজু কওে ও পানি পান করে। পানি পান করার কিছুক্ষণ পরেই মাদ্রাসার ৫ জন শিক্ষার্থী পেটে জ্বালাপোড়া ও বমি করতে থাকে এর কিছুক্ষণের মধ্যেই জ্ঞানশূন্য হয়ে অসুস্থ হয়ে পড়ে।

তাদের অসুস্থতা দেখে স্থানীয়রা দ্রুত উদ্ধার করে রামেক হাসতাপালে নিয়ে যায়। এদের মধ্যে রামেক হাসপাতালে ভর্তি আটজন হলো, বিপ্লব (১১), নাইম ইসলাম (১৪), মিফতাহুল জান্নাত(৭), আক্তার রহমান (৯), শাহাদাৎ (১৪), সিফাত (১২), সাব্বির (১২), সাহাবুদ্দিন (১৩)। তাদের সবাইকে ১৩ এবং ২৫ নং ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়েছে। পরে আরও ৫ জন একইভাবে গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়ে এখবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে স্থানীয় লোকজনের মাদ্রাসায় ভীড় জমাতে থাকে।

এলাকাবাসী জানায়, পানির ট্যাংকিতে শত্রুতামূলকভাবে কে বা কাহারা বিষ প্রয়োগ করে। ইতিমধ্যে রিশিকুল ইউপির চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম টুলু, মাদ্রাসার হুজুর আলী আকবরসহ স্থানীয় লোকজন পানির ট্যাংকটি পরিদর্শন করে। বিষ প্রয়োগের আলামত হিসেবে বোতল-প্যাকেট পাওয়া গেছে।

রিশিকুল ইউপির চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম টুলু উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও গোদাগাড়ী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) এসএম আবু ফরহাদকে জানালে দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে এ ঘটনার জন্য তদন্ত করে।

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ঘটনাস্থলে গোদাগাড়ী মডেল থানার ওসি এস.এম আবু ফরহাদ ও ভারপ্রাপ্ত উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মনির হোসেন ঘটনা স্থলেই ছিলেন। এ বিষয়ে গোদাগাড়ী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবু ফরহাদ বলেন, বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। পরে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান।